ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পৃথক সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত,মহাসড়ক অবরোধ-সাত দাঙ্গাবাজ গ্রেফতার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:—
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পৃথক সংঘর্ষে মহিলা-শিশুসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। এসময় বাড়িঘর- দোকানপাট ভাঙচুর-লুটপাটের শিকার হয়েছে। সংঘর্ষের কারণে টানা দুই ঘন্টা কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়ক থাকে অবরুদ্ধ। জেলার সদর উপজেলার নন্দনপুর ও আখাউড়া উপজেলার শান্তিনগর গ্রামে সংঘর্ষের ঘটনাগুলো ঘটে। পুলিশ লাঠিচার্জ-টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনাসহ সাত দাঙ্গাবাজকে গ্রেফতার করে। পরবর্তী সংঘাত এড়াতে বর্তমানে এলাকায় মোতায়েন রয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্র জানায়, বৃহষ্পতিবার সকালে সদর উপজেলার নন্দনপুরে আব্দুল হকের জমিতে ক্রিকেট খেলা নিয়ে হেলাল মেম্বারের গোষ্ঠীর লোকজনের সাথে হিরা মিয়ার গোষ্ঠীর লোকজনের কথা কাটাকাটি হয়। এরই জেরে উভয় পক্ষের লোকজন রামদা, বল্লম, চাইনিজ কুড়ালসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সকাল ১০টার দিকে সশস্ত্র সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। টানা দুই ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের মহিলা-শিশুসহ কমপক্ষে অর্ধশত লোক আহত হয়। এর মধ্যে গুরুতর অবস্থায় মনোয়ারা বেগম (২৩), নুর আলম (২০), মনা মিয়া (২৫), মুসলিম মিয়া (২০), জাহানারা বেগম (৫৫), মুক্তার হোসেন (১৮), আলিয়া বেগম (৩০), পাপিয়া বেগম (০৫), আরস আলী (৫০), রাশেদা বেগম (৩০), হাসনা বেগম (৪০), পরশ মিয়া (৩৫), ওয়াসিম মিয়া (৩০), নুরুল হক (৪৫), খায়ের মিয়া (৫৫), সিরাজ মিয়াকে (৩৫) ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তিসহ ও অন্যদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে হিরা মিয়ার দোকান এবং আরশ আলীর একটি, ফালু মিয়ার একটি, জসিম উদ্দিনের দুইটি, হিরা মিয়ার তিনটি, মন্তান মিয়ার তিনটিসহ কমপক্ষে ১২টি বাড়িঘরে ব্যাপক ভাঙচুর-লুটপাট চালায় দাঙ্গাবাজরা। বন্ধ হয়ে যায় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে যানবাহন চলাচল। ফলে ঘটনাস্থলের উভয়পাশে কয়েক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ব্যাপক লাঠিচার্জ করেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে ব্যর্থ হলে কমপক্ষে ১৫ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে সাত দাঙ্গাবাজকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
জানতে চাওয়া হলে সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো. আব্দুর রব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে এই প্রতিবেদককে জানান, ‘বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। পরবর্তী সংঘাত এড়াতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে সাত দাঙ্গাবাজকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’
এদিকে জেলার আখাউড়া উপজেলার শান্তিনগরে তুচ্ছ ঘটনায় সৃষ্ট সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে সাগর মিয়ার (১৫) অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply