চালু হচ্ছে কুমিল্লা বিমান বন্দর: প্রশিক্ষণ স্কুল করার অনুমোদন, চালানো যাবে ফ্লাইটও

264942mকুমিল্লাঃ—
অবশেষে কুমিল্লা বিমান বন্দর পুণরায় চালু হচ্ছে । বিমান বন্দরটি পুণরায় চালুর প্রথম প্রদক্ষেপ হিসেবে একটি বেসরকারি প্রশিক্ষণ কোম্পানীকে বিমান উড্ডয়ন/প্রশিক্ষণ স্কুল করার অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ। এ জন্য চলতি মাসেই সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে কুমিল্লা বিমান বন্দরের রানওয়ে মেরামত, ফায়ার সার্ভিস পুণরায় স্থাপন কাজসহ অন্যান্য আনুষাঙ্গিক কাজ সমাপ্ত করার কাজ শুরু হবে। এ কাজ শেষ হলে বিমান প্রশিক্ষণ চালানোর পাশাপাশি যাত্রী বহনে ফ্লাইট চালুও সম্ভব হবে। এ দিকে কুমিল্লা বিমান বন্দর পুণরায় চালুর চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের খবর কুমিল্লায় ছড়িয়ে পড়লে আনন্দের বন্যা বয়ে যায়। বিমান বন্দরটি চালুর জন্য কুমিল্লার সর্বস্তরের মানুষ আন্দোলন চালিয়ে আসছিল।

জানা গেছে, বাংলাদেশ সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ গত ৬ মার্চ কুমিল্লা বিমান বন্দরে উড্ডয়ন/প্রশিক্ষণ পরিচালনার জন্য ব্লু ফ্লাইং একাডেমি লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠানকে কুমিল্লা বিমান বন্দর ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে। সিএএবি/এ/এটিএস/১৫০১/১৩/২১২০ নম্বর স্মারকে সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ এর পরিচালক আজাদ জহিরুল ইসলাম বেসরকারি ঐ সংস্থাকে এ অনুমোদন দেন। তারা নিজ খরচে বিমান প্রশিক্ষণ স্কুল স্থাপন করবে। সেই সাথে বিমান বন্দর কর্তপক্ষ নিজ উদ্যোগে কুমিল্লা বিমান বন্দরের রানওয়ে মেরামত, লাইট স্থাপন, ফায়ার সার্ভিস পূণস্থাপনসহ অন্যান্য কাজ সম্পন্নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী শুক্র বা শনিবার এ কাজের জন্য একটি পরিদর্শক দল কুমিল্লা বিমান বন্দরে আসবে বলে জানা গেছে। রানওয়ে মেরামত ও অন্যান্য কাজে অন্তত বিশ কোটি টাকা খরচ হবে।

ব্লু ফ্লাইং একাডেমি লিমিটেডের চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল জহির স্বপন জানান, কুমিল্লা বিমান বন্দরে ব্লু ফ্লাইং একাডেমি আন্তর্জাতিক মানের পাইলট প্রশিক্ষণ স্কুল করবে। প্রথম দিকে এ ক্লাস নেয়া হবে ঢাকাতেই। বিমান প্রশিক্ষণের জন্য ২ ও ৪ সিটের ৬টি বিমান কেনা হচ্ছে। যা আগামী ৪/৫ মাসের মধ্যে আমরা পেয়ে যাবো।

তিনি জানান, প্রথমে প্রশিক্ষণ কাজ চালাবো। পরবর্তীতে যাত্রী বহনেও বিমান ফ্লাইট চালানো যাবে।

কুমিল্লা বিমান বন্দরের ব্যবস্থাপক আব্দুল গনি জানান, বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ রানওয়ে মেরামত, ফায়ার সার্ভিস পুনরায় স্থাপন ও অন্যান্য উন্নয়ন কাজ নিজ উদ্যোগে করে দিবে। এজন্য একটি পরিদর্শন দল শুক্রবার ও শনিবার কুমিল্লায় আসতে পারে।

কুমিল্লা বিমান বন্দর চালুর আন্দোলনের সমন্বয়ক আবুল কাশেম হৃদয় জানান, বিমান বন্দর চালুর দাবিতে সর্বস্তরের মানুষ আন্দোলন করছিলো কেননা কুমিল্লাবাসীর ভাগ্য পরিবর্তনে ভূমিকা রাখবে কুমিল্লা বিমান বন্দর । যানজট এবং সড়কপথে আসার বিভিন্ন ধকল পেরিয়ে দীর্ঘ সময় ব্যয় করে কুমিল্লা ইপিজেডে কোন বিদেশী বিনিয়োগকারী আসতে চাচ্ছিল না। এ বিমান বন্দর চালু হলেই কুমিল্লা ইপিজেডের বিনিয়োগকারীরা সহজে কুমিল্লায় আসা যাওয়া করতে পারবেন এতে কুমিল্লায় বিনিয়োগ বাড়বে। স্টল বিমান সুবিধার এ ইপিজেডে কর্মসংস্থান হবে কুমিল্লার মানুষের। তা ছাড়া কুমিল্লা থেকে নানা গন্তব্যে যেতে পারবে কুমিল্লার মানুষ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply