বর্ণাঢ্য আয়োজনে কুমিল্লা সোসাইটির আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস অনুষ্ঠান “আমার ভাষা” সম্পন্ন

DSC_8530মিজানুর রহমান সরকারঃ—
আমি প্রাচীন সভ্যতা ও মার্তৃগর্ভ থেকে হেটে হেটে তোমাদের কাছে এসেছি। আমি হাজার বছরের এক ছোট্র বালক, পারি দিতে হবে কয়েক লক্ষ আলোক বর্ষ, আমার দ্বিতীয় জন্ম ১৯৫২ এর একুশে ফেব্রুয়ারী। আমার নাম বাংলা ভাষা। ফেরি ওয়ালা কবিতার উপরোক্ত পংক্তিমালা দিয়ে প্রফেসর মনির হোসেন খানের গ্রন্থনা ও উপস্থাপনায় বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও সমাজ সেবী মোশাররফ হোসেন খান চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবী সরকার ইসলামের সার্বিক তত্বাবধানে শুরু হয় কুমিল্লা সোসাইটির নর্থ আমেরিকার আয়োজনে আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস উপলক্ষে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ”আমার ভাষা” । অনুষ্ঠানের শুরুতে মঞ্চে আসন গ্রহণ করেন প্রধান অতিথি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বোর্ড কুমিল্লার চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর কুন্ডু গোপী দাশ। এর পরই মঞ্চে আসেন অনুষ্ঠানের প্রধান আকর্ষণ জাতীসংগের আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবসের উদ্দ্যোক্ত ”দ্যা মাদার ল্যাঙ্গুয়েজ লাভারস অব দ্যা ওয়ার্ল্ড” এর সম্মানিত সভাপতি রফিকুল ইসলাম। পর্যায়ক্রমে আসন গ্রহণ করেন কনসাল জেনারেল মনিরুল ইসলাম, ডেমোক্রেটিক লিডার এবং ইউনাইটেড স্ন্যাক্স এর সভাপতি ক্লিক ষ্টেনটন কমিউনিটি এক্টিভিষ্ট এবং বাংলা ভাষায় প্রকাশিত প্রথম পত্রিকা প্রবাসী এর সম্পাদক জনাব মোহাম্মদ উল্লাহ। বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সভাপতি মজিবুর রহমান। বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সভানেত্রী নারগিস আহম্মেদ, কুমিল্লা সোসাইটি নর্থ আমেরিকার সাবেক সভাপতি যথাক্রমে সাকিব মজুমদার, এস.এম. জাহাঙ্গীর এবং মূল ধারার রাজনীতিবিদ এম মজুমদার, পবিত্র কোরান তেলাওয়াত ও গীতা পাট, জাতীয় সঙ্গীত ও ন্যাশনাল এনথিউম পরিবেশন শেষে ১৯৫২ এর ভাষা আন্দোলন, ৬৯ এর গণ অভ্যূথান, ৭১এর মুক্তিযোদ্ধ, ৯০ এর গণঅভ্যূথান সহ সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সব শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সনজাল জেনারেল বক্তব্যে প্রবাসী বাংলাদেশীদের যে কোন সমস্যা সহযোগীতায় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন এবং আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষার উদ্দ্যোক্ত রফিকুল ইসলামকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। অনুষ্ঠানের মধ্যমনি একুমে ফেব্রুয়ারীকে আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষনা করার প্রস্তাব ও উদ্দ্যোক্ত রফিকুল ইসলাম তার বক্তব্যে একটি একুশ কিভাবে আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হল তার বর্ণনা দেন। উপস্থিত দর্শক ও শ্রোতারা গভীন মনযোগের সাথে তা স্বরণ করেন। ভিক্টরিয়া কলেজের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বোর্ডের বর্তমান চেয়ারম্যান একাত্তরের বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর কুন্ডু গোপী দাস তার বক্তব্যে ৫২র ভাষা আন্দোলন, ৭১এর মুক্তিযোদ্ধের ইতিহাস তুলে ধরেন। তিনি কুমিল্লা বোর্ডের দায়িত্ব গ্রহনের পর সকল প্রকার অনিয়ম দূর্নীতি বন্ধ করেন। অনুষ্ঠানের আয়োজকদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে প্রবাসের কেউ কুমিল্লা বোর্ডের আওতায় কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত করতে চাইলে তিনি সর্বাত্বক সহযোগীতার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। মি: ক্লিফ ষ্টেনটন আগামী সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দিতা করবেন। তিনি বাঙ্গালী কমিউনিটির সহায়তা কামনা করেন। কুন্ডু গোপী দাস, মনিরুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম এবং ক্লিফ ষ্টেটনকে আজীবন সম্মাননা সদস্য সনদ ও ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়। এখানে উল্লেখ্য যে কুমিল্লা সোসাইটি ইতিমধ্যে বাংলাদেশের সংবিধান রচয়িতা ডা: কামাল, সাবেক আইন মন্ত্রী এড. আবদুল মতিন খসরু এমপি, মুক্তিযোদ্ধা প্রতিমন্ত্রী রেদওয়ান আহম্মেদ, শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলন, মেজর জেনারেল অব: সুবিদ আলী ভূইয়া, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, শওকত মাহমুদ, ফেরদাউস রহমান, মোস্তফা জামান আব্বাসী, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যাকে আজীবন সম্মানিত সদস্য সনদ প্রদান করা হয়। আলোচনা শেষে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান কুন্ডু গোপী দাস, ৪০জন কৃতি শিক্ষার্থীর মাঝে সনদ বিতরণ করেন। দ্বিতীয় পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ফারজানা পপি। সুর ও ছন্দের নৃত্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানকে আরো উপভোগ্য করে তুলেন। এছাড়া জিন্নাত রাহানা রত্না, লেমন চৌধুরী ও পলাশ এর গান সকলে প্রাণ ভরে উপভোগ করেন। ছোট মনি অনাদি ও অঙ্কন এর নৃত্ব পরিবেশনা সকলের দৃষ্টি কেড়ে নেয়। অনুষ্ঠানের সার্বিক সহযোগীতায় ছিলেন সদস্য সচিব জসিম উদ্দিন ভিপি, নাদের সরকার, আলামিন, গোলাম আযম লিটন, মাহমুদুল হক মুরাদ, সৈয়দ শরিফ, মোকাদ্দেছ হোসেন, হুমায়ূন কবির প্রমুখ। অন্যদের মধ্যে কুমিল্লার তথা বাংলাদেশ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন, এর মধ্যে এমদাদুল হক কামাল, আনোয়ারুল ইসলাম, আজাদ বারে, ইউনুস সরকার, কবির হোসেন অভি, সিরাজুল ইসলাম সরকার, জাহাঙ্গীর আলম সরকার, মিয়া মো: দুলাল, মাহাবুবুল আলম জামিল, মাহাবুবুর রহমান মিঠু, কবির উদ্দিন ভূইয়া, শাহ আলম, আবু তাহের ভূইয়া, আবু বশর মিলন, জাকির হোসেন, কামাল হোসেন পাটোয়ারী প্রমুখ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply