কুমিল্লার মুরাদনগরে কুাল্পনীক ঘটনা সাজিয়ে ৩ মামলা : আসামি ১৪৮

মোঃ মোশাররফ হোসেন মনির, মুরাদনগর(কুমিল্লা)প্রতিনিধিঃ—
কুমিল্লার মুরাদনগরে একের পর এক কাল্পনীক ঘটনা সাজিয়ে বিএনপি’র নেতাকর্মী, ব্যবসায়ী ও স্থানিয় নিরীহ সাধারণ মানুষসহ প্রায় দেড়শতাধিক লোকজনকে আসামী করে বিস্ফোরক আইনে মামলা করেছে পুলিশ। পুলিশ কতৃক রাজনৈতিক মামলার অন্তরালে বিএনপি’র নেতাকর্মী, এলাকার বিশিষ্ট ব্যাবসায়ীসহ সাধারণ লোকজনদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করায় এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভ ও মিথ্যা মামলার আতংক দেখা দিয়েছে।
স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানাজায়, গত মঙ্গলবার ৫মার্চ বিএনপির ডাকা সারাদেশ ব্যাপী হরতাল চলাকালে মুরাদনগর উপজেলার টনকি বাসষ্টেশনে ককটেল বিস্ফোনের অভিযোগে থানা পুলিশ বাদী হয়ে জেলা বিএনপির উপদেষ্টা বিশিষ্ট শিল্পপতী গোলাম কিবরীয়া সরকার, উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম-সাধারন সসম্পাদক কামাল উদ্দিন ভুইয়া, উপজেলা যুবদলের প্রচার সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, বাঙ্গরা বাজারের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম, মেটংঘর বাজারের ব্যাবসায়ী আলম চৌধুরী, পার্শ্ববর্তী নবীনগর উপজেলার ব্যাবসায়ী শাহিনসহ মোট ৬৩ জনকে আসামী করে বিস্ফোরক আইনে একটি মামলা দায়ের করে। একই দিনে উপজেলার দিঘিরপাড় বাজারের পাশে বিষ্ণুপুর ব্রিজের নিকট হামলা দেখিয়ে স্থানিয় বাঙ্গরা পশ্চিম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন সহ ৪২জন বিএনপি নেতা কর্মীকে আসামি করে আরো এক মামলা দায়ের করে। এ মামলার বাদী উপজেলা আ’লীগের প্রভাবশালী একনেতার আতœীয়।
গত ২৪ ফেব্র“য়ারী রোববার সরাদেশে ইসলামী সমমনা দলগুলোর ডাকে হরতাল চলাকালে মুরাদনগর-কোস্পানীগঞ্জ সড়কের রহিমপুরে বিস্ফোরক ফোটানোসহ কিছু গাড়ী ভাঙচুরের অভিযোগে মুরাদনগর থানা পুলিশ বেশ কয়েকজন বিএনপির নেতা ও এলাকার সাধারন মানুষসহ ৪৩ জনের নামে বিস্ফোরক আইনে আরও একটি মিথ্যা মামলা করেছে।
শনিবার ঘটনার স্থলে গিয়ে এর কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি। এলাকাবাসী জানায়, এখানে এ ধরনের কোন ঘটনাই ঘটেনি।
স্থানীয়রা জানায়, পুলিশ ঢালাও ভাবে যে হারে রাজনৈতিক, ব্যাবসায়ী ও সাধারন মানুষদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে তাতে করে এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভ ও মিথ্যা মামলার আতংক দেখা দিয়েছে। তারা জানায় মিথ্যা মামলা দিয়ে মানুষের কাছ থেকে আর্থিক ভাবে লাভবান ও পকেট ভারী করার জন্যই এ মামলা করেছে পুলিশ। সাধারন মানুষ অবিলম্বে এ মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানান। তারা আরও জানান, ঘটনার সময় অনেকে এলাকায় ছিলেন না।
এ ব্যাপারে মুরাদনগর উপজেলা বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক মোল্লা মজিবুল হক বলেন, পুলিশের এ ধরনের ন্যাকার জনক কর্মকান্ডে উপজেলার ব্যবসায়ী ও সচেতন মানুষের মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। এবং পুলিশের ভাবমূতি মারাতœক ভাবে নষ্ট হচ্ছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply