কুমিল্লার দেবিদ্বারে কিশোরের লাশ উদ্ধার

assdদেবিদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ—
কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা সদরের কলেজ রোডের কালাচান মার্কেট সংলগ্নে এক কিশোরের মৃতঃ দেহ উদ্ধার করেছে দেবিদ্বার থানা পুলিশ। ওই কিশোরের মৃত্যু নিয়ে এলাকায় তোলপাড় ও নানা গুঞ্জণ শুরু হয়েছে। এটি হত্যা না স্বাভাবিক মৃত্যু এ বিষয়ে পুলিশ কিছু বলতে পারছেনা। পুলিশ বলছে লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরই বলাযাবে হত্যা না স্বাভাবিক মৃত্যু। তবে নিহতের পরিবর বলছে তাকে হত্যা করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার গুনাইঘর গ্রামের মৃতঃ তাজুল ইসলামের ছেলে মোঃ জালাল উদ্দিন(১৬) উপজেলা সদরের কলেজ রোডের জামাল মিয়ার চা’ষ্টলে কর্মরত ছিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিহত জালাল দোকান মালিককে না বলেই চলে যায়, তাকে অনেক খোঁজা খুজি করে না পেয়ে দোকান মালিক যথারিতী দোকান বন্ধ করে বাড়ি চলে যান। ওই দিন দিবাগত রাত দেড়টায় কর্মরত জামালের চা’ দোকানের সামনে মাটিতে শুয়ে ছটফট করতে দেখে স্থানীয় দোকান কর্মচারী ও কর্তব্যরত নৈশ প্রহরীরা এগিয়ে এসে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, পেটের ব্যথায় সে ছটফট করছে, পুলিশ ও দোকান মালিক জামাল মিয়াকে খবর দিলে তাদের উপস্থিতিতে জিজ্ঞাসাবাদ কালেই তার মৃত্যু হয়। পুলিশ ওই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চা’দোকান মালিক, নৈশ প্রহরী ও দুই দোকান কর্মচারীসহ ৪জনকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদের পর তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।
নিহতের মা’ দেবিদ্বার আলহাজ্ব জোবেদা খাতুন মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ’র ছাত্রী হোষ্টেলের রাঁধূনী হাসনা বেগম তার পুত্রের মৃত্যুকে স্বাভাবিক মৃত্যু বলে মানতে রাজি নন, তিনি দাবী করছেন তার পুত্রকে হত্যা করা হয়েছে।
দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) এসএম বদিউজ্জামান বলেন, নিহত চা’দোকান কর্মচারী জালাল’র পেটের ব্যাথায় মৃত্যু হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে, পুলিশের উপস্থিতিতে তার মৃত্যু হলেও ছোরতহাল রিপোর্টে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এব্যাপারে থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের পূর্বক ময়না তদন্তের জন্য লাশ কুমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply