মতলব-শ্রীরায়েরচর মহাসড়কে ১৫ কিলোমিটারের মধ্যে ২০টি গতিরোধক,ঝুঁকিপূর্ন যানচলাচল

শামসুজ্জামান ডলার, মতলব উত্তর(চাঁদপুর)থেকেঃ—

চাঁদপুরের মতলব-শ্রীরায়েরচর মহাসড়কে ১৫ কিলোমিটারের মধ্যে গতিরোধক রয়েছে ২০টি। মতলব-শ্রীরায়েরচর এই মহাসড়কে প্রতিনিয়ত ঝুঁকিরমধ্যে যাতায়াত করছে বিভিন্ন রকমের শতশত গাড়ী। এই মহাসড়কে ঢাকার সাথে যোগাযোগের সুবিধা ও সময় কম লাগাতে মতলব দক্ষিণ, চাঁদপুর, হাজীগঞ্জ, ফরিদগঞ্জ, সাহারাস্তি, রামগঞ্জ, লক্ষীপুর ও নোয়াখালী জেলার লোকজন এই সহসড়ক দিয়ে যাতায়াত করে। তাই এ মহাসড়কটি দিনের পর দিন আরো গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে। মতলব থেকে শ্রীরায়েরচর পর্যন্ত এই ১৫ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে রয়েছে ২০টি গতিরোধক। সাধারণত দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ও গাড়ীর গতিরোধের জন্য এই গতিরোধকগুলো দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এই গতিরোধকগুলোর কারনেই বাড়ছে দূর্ঘটনা। সম্প্রতি হরিনা কবরস্থান সংলগ্নে গতিরোধক অতিক্রম করার সময় মিনি পিকআপ এর সাথে মটরসাইকেলের সংঘর্ষে নিতহ হয় উপজেলা সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ও মুক্তিযোদ্ধা মাহফুজুর রহমান। এছাড়াও এই মহাসড়কে নিত্যই ঘটছে ছোট-বড় অনেক দূর্ঘটনা। মতলব উত্তর উপজেলার মতলব-শ্রীরায়েরচর মহাসড়কের হরিণা কবরস্থান সংলগ্ন এলাকায় প্রভাবশালী নেতাদের কারনেই ১০০ গজের মধ্যে দেওয়া হয়েছে ৩টি গতিরোধক। গতিরোধকগুলোতে চোখে পড়ার মতো কোন ধরনের রং না করায় অনেক সময় গাড়ী চালকরা এই গতিরোধকগুলো ঠিকমত দেখতে পায় না। তাই নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেলে অনেক সময় অনেক দূর্ঘটনা ঘটছে।
এ ব্যপারে মতলব উত্তর উপজেলার মাসিক আইন-শৃঙ্খলা সভায় গতিরোধকগুলোর উপর রং দিয়ে চিহ্নিত করার লক্ষ্যে বেশ কয়েকবার সিদ্ধান্ত হলেও দীর্ঘ্য সময়েও তা কার্যকর করা হচ্ছে না। এ ব্যপারে মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু আলী মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, দূর্ঘটনা এড়াতে ও গতিরোধকগুলো যাতে গাড়ী চালকরা দেখতে পায় সেজন্যে উপজেলার মাসিক আইন-শৃঙ্খলা সভায় গতিরোধকগুলোর উপর রং দিয়ে চিহ্নিত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ইউনিয়নের আওতাভুক্ত গতিরোধকগুলো স্ব-স্ব ইউনিয়ন পরিষদ সেই গতিরোধকগুলোকে রং দিয়ে চিহ্নিত করে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বাস্তবায়ন করবে।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply