বাঁশের সাঁকোতে স্বপ্ন পূরণ

sarail pic 26-02-13=আরিফুল ইসলাম সুমন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া স্টাফ রিপোর্টারঃ—
নদীর নাম বগাদিয়া। সরাইলের অরুয়াইল ও পাকশিমুল ইউনিয়নের সীমানার মাঝ দিয়ে বয়ে গেছে এটি। নদীর উপর নেই স্থায়ী সেতু। দুই ইউনিয়নের পাঁচ গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ রয়েছে চরম দূর্ভোগে। কয়েকবছর আগে এলাকার মানুষদের সুবিধার্থে পাকশিমুল ইউনিয়নের ফতেহপুর গ্রামের দরিদ্র মোঃ খুদা নেওয়াজ নদীর উপর তৈরী করেন বাঁশের সাঁকো। ফলে এলাকার সহস্রাধিক মানুষের দূর্ভোগ হ্রাস পায়। অপরদিকে স্বপ্ন পূরণ হয় বৃদ্ধ খুদা নেওয়াজের। সাঁকোর আয় দিয়ে তার পরিবারে সচ্ছলতা ফিরে এসেছে। এই সাঁকোকে ঘিরে তার লালিত স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে।
খুদা নেওয়াজ জানান, এই সাঁকোটি তার পরিবারের একমাত্র আয়ের উৎস। নিজ উদ্যোগে তৈরী এই সাঁকো দিয়ে পাকশিমুল ও অরুয়াইল ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের মানুষ চলাচল করেন। পারাপারে তারা প্রত্যেকে দুই টাকা করে দেন। দৈনিক আয় দুইশ’ থেকে তিনশ’ টাকা। খুদা নেওয়াজ মিয়ার দুই ছেলে, চার মেয়ে। ছেলেরা গ্রামের স্কুল পর্যন্ত লেখাপড়া শেষ করে পিতার সাথে সংসারের হাল ধরেছে। মেয়ে পিয়ারা বেগমকে এইচ.এস.সি পাশের পর বিয়ে দিয়েছেন। আরেক মেয়ে আকলিমা আক্তার এস.এস.সি পরীক্ষা দিচ্ছে। ছোট মেয়ে নাছিমা আক্তার বাক প্রতিবন্ধী। প্রতিবন্ধকতার মাঝেও সে গ্রামের প্রাইমারি স্কুলে পঞ্চম শ্রেণীতে লেখাপড়া করছে।
পাকশিমুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কাজী মোজাম্মেল হক জানান, খুদা নেওয়াজ একজন দরিদ্র ব্যক্তি। এলাকার বগাদিয়া মজা নদীর উপর তিনি একটি বাঁশের সাঁকো তৈরী করে এর আয় দিয়ে দীর্ঘ দিন যাবত জীবিকা নির্বাহ করছেন। এলাকার লোকদের চলাচলে সুবিধা হয়েছে। নানা সমস্যার মাঝে তার মেয়েরা লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছে। এই নদীর উপর একটি স্থায়ী সেতু নির্মাণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

Check Also

নাসিরনগরে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ালেন রেড ক্রিসেন্ট

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– সরকারি-বেসরকারি ত্রাণ সহায়তার পর এবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরের ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের পাশে ...

Leave a Reply