সরাইলে মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে আওয়ামী লীগ ছাড়াই

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ—
সরাইলে এইবারই প্রথম আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে আওয়ামী লীগ ছাড়াই। বর্তমান রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসীন এ দলটির পক্ষ থেকে এখানে শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন করা হয়নি। দিবসটি পালনে এখানকার দলের দায়িত্বশীল নেতা-কর্মীরা কোনো উদ্যোগই নেননি। এ ঘটনায় তৃণমূল ত্যাগী নেতা-কর্মীসহ এখানকার আওয়ামী লীগের সমর্থকদের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।
আওয়ামী লীগের ত্যাগী কর্মী ও সরাইল প্রাতবাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম ক্ষোভের সাথে জানান, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বুধবার দিবাগত রাত ১২টা ১মিনিটে বিরোধীদল বিএনপিসহ অন্যান্য দল ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে স্থানীয় কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পনের মাধ্যমে শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে। তিনিও বাজার কমিটির পক্ষ থেকে ব্যবসায়ীদের নিয়ে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানান। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কেউ এই শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন না করায় উপস্থিত অনেকে ক্ষোভে ফেটে পড়েন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দিবসটি উপলক্ষে সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগ এবং এর অঙ্গসংগঠনের পক্ষ থেকে কোনো কর্মসূচি গ্রহণ ও পালন করেননি দলের নেতা-কর্মীরা। সরাইল উপজেলা আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হাজী ইকবাল হোসেন এখানে দলের পক্ষ থেকে মাতৃভাষা দিবস পালন না করার কারণ উল্লেখ করে জানান, গত ২১ অক্টোবর উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি হাজী এ.কে.এম ইকবাল আজাদ নিহত হওয়ার পর থেকে এখানকার দলীয় কর্মকান্ডে বড় ধরণের বিশৃঙ্খলা চলছে। এ হত্যা মামলায় আসামি হয়ে দলের সভাপতি আব্দুল হালিম, সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাহফুজ আলীসহ কয়েকজন নেতা জেলহাজতে আছেন। তাছাড়া এখানকার দলীয় সকল কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়েছে। কেন্দ্রে থেকে পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত তাদের পক্ষ থেকে কোনো কর্মসূচি গ্রহন বা পালন করা সম্ভব হচ্ছে না। সরাইল আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট হাজী আবদুর রাশেদ জানান, এখানকার দলীয় সকল কার্যক্রম স্থগিতের বিষয়টি সঠিক নয়। এ রকম একটি প্রস্তাব রেখে কেন্দ্রে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু কেন্দ্রীয় কমিটি এ প্রস্তাব গ্রহণ করেননি। মাতৃভাষা দিবস পালনে এখানকার আওয়ামী লীগ অংশ না নেওয়ার প্রসঙ্গে তিনি জানান, একটি সমস্যা আছে। তা দলের অনেকেই জানেন। এখানকার দলীয় কর্মকান্ডে নেতৃত্বের শূন্যতা আছে বলেও তিনি ইঙ্গিত করেন। এদিকে সরাইল উপজেলা প্রশাসন দিবসটি নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পালন করেছে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল চিত্রাঙ্গন ও রচনা প্রতিযোগিতা, সুন্দর হাতের লেখা, কবিতা আবৃত্তি, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ইত্যাদি। গত বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান খান এর সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা হয়েছে। সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন সরাইল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) ইঞ্জিনিয়ার মোঃ শাহজাহান মিয়া। বক্তব্য রাখেন, অধ্যক্ষ মৃধা আহমেদুল কামাল, জাপা নেতা মোঃ হুমায়ূন কবির, বিএনপি নেতা মোঃ আনোয়ার হোসেন মাস্টার, প্রেসক্লাব সভাপতি মোঃ আইয়ূব খান, সাংবাদিক শফিকুর রহমান প্রমূখ। পরে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply