দেশ চলছে প্রধানমন্ত্রীর আইনে———-ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া

barister-rafiqul-islamঢাকা অফিসঃ—-
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেছেন, “হত্যা, নারী নির্যাতন ও সন্ত্রাসের সাত হাজার ১০৩টি মামলা সরকার রাজনৈতিক বিবেচনায় প্রত্যাহার করেছে। আর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধ একের পর এক মিথ্যা মামলা দেয়া হচ্ছে।”
তিনি বলেন, “সাংবাদিক মাহমুদুর রহমানকে মিথ্যা মামলা দিয়ে সরকার অবরুদ্ধ করে রেখেছে। এখন দেশ চলছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আইনে।”
বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর তোপখানা সড়কে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানবন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।
আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের মামলা ‘মিথ্যা’ উল্লেখ করে সেটি প্রত্যাহারের দাবিতে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।
চলমান যুদ্ধাপরাধ বিচার নিয়ে স্কাইপের মাধ্যমে প্রবাসী এক আইন বিশেষজ্ঞের সঙ্গে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারপতি নিজামুল হকের কথোপকথন নিয়ে প্রায় দু’মাস আগে দৈনিক আমার দেশ পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। এ নিয়ে পত্রিকাটির ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান ও প্রকাশক হাসমত আলীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হয়। এর পর থেকেই পত্রিকাটির কার্যালয়ে অবরুদ্ধ আছেন মাহমুদুর রহমান।
মানববন্ধনে রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেন, “সরকার মাহমুদুর রহমানকে মামলার রিভিউ করার অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে। বিকাশের মতো শীর্ষ সন্ত্রাসীদের মুক্তি দিচ্ছে। আর মাহমুদুর রহমানের মতো সাংবাদিককে অবরুদ্ধ করে রেখেছে।”
তিনি বলেন, “আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। দেশ নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র চলছে। সাংবিধানিক সরকার থাকবে কি না সেটি নিয়েও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।”
জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকারব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা’র সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবদুস সালাম, মহানগর মহিলা দল সভাপতি সুলতানা আহম্মেদ প্রমুখ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply