রাবি ফুলকুঁড়ি আসরের শীতবস্ত্র বিতরণ

রাজশাহী প্রতিনিধি:—–
জাতীয় শিশু-কিশোর সংগঠন ফুলকুঁড়ি আসর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা শনিবার সকালে ক্যাম্পাস পাশ্ববর্তী মেহেরচন্ডী, বুধপাড়া ও ধরমপুরের শীতার্ত দুস্থ ও গরীব শিশু-কিশোরদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে। অর্থ সম্পাদক মুস্তাফিজুর রহমান মাসুম- এর পরিচালনায় এবং শাখা পরিচালক বিশিষ্ট শিশু-কিশোর সংগঠক এস এম এ বারীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবক মোজাম্মেল হক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আসলাম হোসাইন।
ফুলকুঁড়ি আসর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার শীতবস্ত্র বিতরণী অনুষ্ঠানে অতিথিরা বলেন দেশের অন্যান্য শিশু-কিশোর সংগঠন থেকে ব্যতিক্রমভাবে কাজ করে এ সংগঠনটি দুস্থ ও গরীব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। তাদের শীতবস্ত্র বিতরণ নিশ্চয় সময়োপযোগী এবং খুবই ভাল। অতিথিবৃন্দ আরো বলেন ফুলকুঁড়ি আসরের মতো সবাই যদি এগিয়ে আসে তবে গরীব শিশুরা শীতে থর থর করে কাঁপবে না। তারা এলাকার সকল বৃত্তবানদের এমন কাজে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে শাখা পরিচালক বলেন জাতীয় শিশু-কিশোর সংগঠন ফুলকুঁড়ি আসর শিশু কিশোরদের জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়ে কাজ করে যাচ্ছে। দীর্ঘ ৩৮টি বছর সফলতার সাথে পার করে এসেছে শিশু ও অভিভাবকদের ভালবাসা ও সহযোগিতা নিয়ে। শীতে যেন শিশুরা কষ্ট না পায় এজন্য ফুলকুঁড়ি আসর গ্রহণ করেছে শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচী। তিনি আরো বলেন, বিভিন্ন মৌসুমে আমরা শিশুদের সহযোগিতা করে তাদেরকে সুস্থ রেখে মেধা ও মননের বিকাশ ঘটানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আর এমন সমাজসেবামূলক কাজের জন্যই বাংলাদেশের একক এবং সর্ববৃহৎ শিশু-কিশোর সংগঠনের গৌরব লাভ করেছে ফুলকুঁড়ি আসর। ভবিষ্যতেও ফুলকুঁড়ি অসর দুস্থ ও শীতার্ত গরীব শিশু-কিশোরদের পাশে থাকবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।
ফুলকুঁড়ি আসরের শীতবস্ত্রের মধ্যে ছিল কম্বল, চাদর, সোয়েটার, মাফলার, শার্ট, প্যান্ট, মোজা ইত্যাদি। শীত বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ফুলকুঁড়ি আসর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার শিক্ষা-সাহিত্য সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, খেলাধুলা ও ব্যায়াম সম্পাদক মোঃ ইসমাইল, প্রচার সম্পাদক এজাজুল হক, প্রকাশনা সম্পাদক রহমতুল্লাহ কানন, পত্রিকা সম্পাদক আব্দুল মালেক এবং কর্মী পরিষদ সদস্যবৃন্দ।
সূত্রে জানা যায়, ফুলকুঁড়ি আসর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা সমাজসেবা বিভাগের কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী ১২টি এলাকায় শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচী পালন করেছে। ডিসেম্বর মাসের শেষ থেকেই তারা শীতবস্ত্র সংগ্রহ ও বিতরণ শুরু করেছে। এবার তারা ইতমধ্যে প্রায় ৬০০ জন দরিদ্র শিশু-কিশোর এবং অভিভাবকের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে। তারা আরও ১০০ শিশু-কিশোরের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করবে বলে জানা যায়। শাখা পরিচালকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাদের টার্গেটের প্রায় সম্পূর্ণ হয়েছে তবে শিশুদের চাহিদার জন্য আমরা আরও কিছু সোয়েটার বিতরণ করবো।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply