আইন শৃংখলা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক: মতলব উত্তরে গত ১ বছরে ১৬ খুন, নারী নির্যাতন ৩৮ অপমৃত্যু ২৬

শামসুজ্জামান ডলার, মতলব উত্তর (চাঁদপুর)::—–
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় গত ১ বছরে খুন হয়েছে ১৬ জন, নারী নির্যাতন ৩৮ আর অপমৃর্ত্যূ ২৬ টি। এ ছাড়াও ডাকাতি ৩টি ও ১টি অস্ত্র মামলা হয়েছে। ১৬ খুনের মধ্যে ২০১২ সালের জানুয়ারীতে ৩টি, এপ্রিলে ২টি, মে’তে ১টি, জুনে ১টি, আগষ্টে ৩টি, অক্টোবরে ১টি, নভেম্বরে ৪টি ও ডিসেম্বর মাসে ১টি। ১২ জানুয়ারী উপজেলার ছেংগারচর পৌরসভার বালুচর গ্রামের নবীর হোসেন (৩০) ভাড়াটিয়া মোটর সাইকেল চালক খুন হন। ১৩ জানুয়ারী দিনে উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামে নবীর হোসেনের লাশ পাওয়া যায়। খুনিদের চিহ্নিত করতে না পাড়ায় এই মামলার কোন অগ্রগতি নাই। ২৩ জানুয়ারী উপজেলার সাদুল্যাপুর গ্রামের রাশিদা বেগম (৩২) নামে এক গৃহবধু যৌতুকের বলি হন। তারপর দিন ২৪ জানুয়ারী গজরা ইউপি’র মৈষাদী গ্রামে লিপি আক্তার (৩২) নামে আরেক গৃহবধু যৌতুকের কারণে পাষন্ড স্বামী কর্তৃক খুন হন। ৬ এপ্রিল ষাটনল ইউপির ষাটনল গ্রামের বাবুর বাজার সংলগ্ন এলাকায় অজ্ঞাত (৩০) নামে এক যুবকের লাশ পাওয়া যায়। ১৬ এপ্রিল ফতেপুর পূর্ব ইউপির ভাটি রসূলপুর গ্রামে পরকীয়া প্রেমের জের ধরে রুমা (৩০) নামে এক গৃহবধু খুন হন। ৯ মে রাত সাড়ে নয়টার দিকে এনায়েতনগর বাজারে বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী লিয়াকত (৫০) খুন হয়। উক্ত মামলাটি সিআইডিতে যাওয়ায় বিচার নিয়ে শংকায় রয়েছে বাদী পক্ষ। ৩ জুন সাড়ে পাঁচানী গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে খুন হন মজিবুর রহমান। ২৬ আগষ্ট ফতেপুর পশ্চিম ইউপির পূর্ব নাউরীতে মজিবুর রহমান ঢালী (৫০) নামে একজন তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে খুন হন। ২৭ আগষ্ট ফরাজীকান্দি ইউপির নয়াকান্দিতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী শাহ আলম (২৫) নামে এক যুবক খুন হন। একই দিন উপজেলার এখলাছপুরে অজ্ঞাত পুরুষের লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। ৭ অক্টোবর সুলতানাবাদ ইউপির ফরিদকান্দিতে চুরি করতে এসে দুর্বিৃত্তরা গৃহকর্মী অহিদুন্নেছাকে খুন করেন। ৮ নভেম্বর ষাটনল লঞ্চঘাট হতে অজ্ঞাত এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। ২৫ নভেম্বর রাতে উপজেলার কালিপুরে ভাড়াটিয়া মোটরসাইকেল চালক কবিরের লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। কবিরের বাড়ী উপজেলার পশ্চিম জীবগাঁও গ্রামে। কেশাইরকান্দি মাদ্রাসার পাশে মাদ্রাসার ছাত্র মাছুম বিল্লা রাব্বানী’র (১০) লাশ পাওয়া যায় নিখোঁজের ৪ দিন পর। ৯ ডিসেম্বর মোহনপুর গ্রামের নুরুল ইসলাম (৩০) কে হত্যা করে তার ভাড়াটিয়া মোটরসাইকেল নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এই ১৬ টি হত্যা মামলার বেশীরভাগ মামলারই নেই উল্লেখযোগ্য কোন অগ্রগতি। তবে, ১৬ হত্যা ছাড়াও নারী নির্যাতন ঘটনায় মতলব উত্তর থানায় মামলা হয়েছে ৩৮টি, অপমৃত্যু ২৬টি, ডাকাতি ৩টি এবং অস্ত্র মামলা ১টি।

উপজেলার বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার কয়েকজনের সাথে কথা হলে তারা জানান, মতলব উত্তর উপজেলার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। আর এখানকার আইন শৃঙ্খলার অবনতির কারণেই হত্যা, নারী নির্যাতন, চুরি, ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড বৃদ্ধি পেয়েছে। তারা মনে করেন, যদি আইন শৃঙ্খলার উন্নতি না ঘটে তবে ভবিষ্যতে আরো অপরাধ বৃদ্ধি পেতে পারে।

এ ব্যাপারে মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ এরফান বলেন, আমি মতলব উত্তর থানায় সদ্য যোগদান করেছি। আমিও আমার থানা স্টাফ আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় যতেষ্ট সচেতন। সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টা ও সহযোগীতা পেলে মতলব উত্তরে আইন শৃঙ্খলার উন্নতি অবশ্যই হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply