এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও সাহেব কোথায় ? মতলবে সরকারী বিজিডি কার্ড বিতরনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন একটি বেসরকারী সংগঠন !

শামসুজ্জামান ডলার, মতলব উত্তর (চাঁদপুর) থেকেঃ—-
উপজেলার ৮২৩ টি বিজিডি কার্ড বিতরন কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন একটি বেসরকারী সংগঠনের ব্যানারে স্থানীয় সাংসদের সহধর্মিনি মিসেস শাহিনা রফিক। এটি সরকারের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন একটি কার্যক্রম। কাজেই সরকারী এমন গুরুত্বপূর্ন কার্যক্রমের উদ্বোধন যদি একটি বেসরকারী সংগঠনের ব্যানারে উদ্বোধন হয় তবে আমাদের স্থানীয় এমপি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ইউএনও সাহেবরা থাকেন কোথায় ? ক্ষোভ প্রকাশ করে এমনটাই জানালেন উপজেলার সচেতন মহলের কয়েকজন।
চাঁদপুরের ১৪ ইউনিয়ন ও ১ পৌরসভার মতলব উত্তর উপজেলার সরকারীভাবে বরাদ্ধকৃত ৮২৩ টি বিজিডি কার্ড বিতরনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন বেসরকারী সংগঠন “ইনার হুইল ক্লাব অব ঢাকা ওয়েস্ট ডিস্ট্রিক্ট-৩২৮”। যে সংগঠনের ব্যানারে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সাংসদের স্ত্রী মিসেস শাহিনা রফিক। গত ১৫ জানুয়ারী বেলা ২.৩০ মিনিটে উপজেলা হলরুমে “ইনার হুইল ক্লাব অব ঢাকা ওয়েস্ট ডিস্ট্রিক্ট-৩২৮” উপজেলার কলাকান্দা ও ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়নের দুস্থ্য ও অসহায় হিসাবে সরকারীভাবে মনোনীত ১১০ জনকে আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের হাতে সরকারী বিজিডি কার্ড তুলে দেয়ার মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। সকাল ১০ টায় বিজিডি’র কার্ড দেয়ার কথা থাকলেও সংগঠনের অতিথিদের আসতে দেরী হবার কারনেই অবশেষে বেলা ২.৩০ মিনিটে এই কার্ড বিতরন কার্যক্রম শুরু হয়। দিনভর দুস্থ্য বয়স্ক এই মহিলারা যে নিদারুন কষ্ট করেছেন তাই জানিয়েছেন সাড়ে পাঁচানী থেকে আসা নূর বানু(৫৮), রসুলপুর থেকে আসা রহিমা বেগম(৫৬), বারো হাতিয়া থেকে আসা মিনারা বেগম(৫৪), সহ অন্য আরো বেশ ক’জন বয়স্কা মহিলা। উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিস সূত্রমতে উপজেলায় এ বছর বিজিডি কার্ড সংখ্যা ৮২৩ টি এবং এই কার্ডের মাধ্যমে দুস্থ্য মহিলা মাসিক ৩০ কেজি করে চাল বরাদ্দ পাবে। যা সরকারে একটি অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ন ও কার্যকরী একটি পদক্ষেপ।
কিন্তু সরকারী এই গুরুত্বপূর্ন এই কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন স্থানীয় সাংসদ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কিংবা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বাদ দিয়ে একটি বেসরকারী সংগঠনের মাধ্যমে উদ্বোধনের কারন নিয়ে স্থানীয় বিভিন্ন মহলে এ নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

সরকারী বিজিএফ কার্ড বেসরকারী সংস্থার মাধ্যমে বিতরন কেন এমন প্রশ্নের জবাবে সংশ্লিষ্ঠ কর্মকর্তা উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আমেনা বেগম বলেন, এটি সরকারের একটি গুরুত্বপূর্ন কার্যক্রম কিন্তু আমাকে উপজেলা প্রশাসন থেকে বলা হয়েছে বলেই আমি কার্ড বিতরন কার্যক্রমটি বেসরকারী এই সংস্থার মাধ্যমে উদ্বোধন করলাম।
এ বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু আলী মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, এমপি সাহেবের কথায় ওনার সহধর্মিনী এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের সাথে মুঠেফোনে কথা হলে তিনি বলেন, এটি অবশ্যই সরকারের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন একটি কার্যক্রম। তবে বেসরকারী সংস্থার ব্যানারে উদ্বোধন করার বিষয়টি যেহেতু আমি এখন জানলাম কাজেই, এ ব্যাপারে ইউএনও সাহেবের সাথে কথা বলে খোজ খবর নিয়ে দেখছি।

শামসুজ্জামান ডলার
মতলব উত্তর(চাঁদপুর)

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply