মতলবে মাদকের ব্যাপক প্রসারঃ গত ১ বছরে ৬০ মাদক ব্যাবসায়ী ও সেবনকারীর জেল-জরিমানা, থানায় মামলা ৮টি

শামসুজ্জামান ডলার, মতলব উত্তরঃ——
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় মাদকের ব্যাপক প্রসার লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গত ১ বছরে ৬০ জন মাদক ব্যাবসায়ী ও সেবনকারীকে পুলিশ আটক করে এদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোটের মাধ্যমে নূন্যতম ৭ দিন থেকে শুরু করে সর্বেচ্চ ১ বছর পর্যন্ত জেল, জরিমানা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। এ ছাড়াও মতলব উত্তর থানায় মাদক আইনে ৮ টি নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ১ বছরে পুলিশী অভিযানে ৬০ জন মাদক ব্যাবসায়ী ও সেবনকারীকে আটক করে মোবাইর কোটে সোপর্ধ করা ও থানায় ৮টি মাদকের নিয়মিত মামলার মাধ্যমেই এ উপজেলায় মাদক আছেকি-না তা স্পষ্ট হয়ে উঠে। তবে মাদক ব্যাবসায়ী ও সেবীকে অটক করে মোবাইর কোটের মাধ্যমে রায় এবং থানায় নিয়মিত মামলা হলেও বড় ধরনের কোন চালান বা নেপথ্যে থাকা কোন হোতাকে আটক করা সম্ভব হয়নি। এ উপজেলার চারদিকে নদী থাকায় মাদকের প্রবেশ বা বিচরন পুরোপুরি বন্ধ করা খুবই কষ্টকর বলে মনে করছেন বিভিন্ন মহল। মতলব উত্তর উপজেলা যুব সমাজের একটি অংশ মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ায় অভিভাবক মহল হতাশ। এখানে মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারীদের থেকে গাঁজা, ইয়াবা, বিয়ার, ফেন্সিডিল ও বিদেশী মদসহ এ জাতীয় মাদই বেশী পাওয়া গেছে। তবে উপজেলার বদরপুরে বৈশাখে ৭ দিনের শাহ সোলেমান লেংটা বাবার মেলায় গাঁজার রমরমা বানিজ্য, সেবন ও পসরা বসার কারনেই এই উপজেলায় মাদকের এতো প্রসার বলে মনে করেন সচেতন মহল। আর মতলব উত্তর থানা সূত্রে জানা যায়, মাদক বিক্রি ও সেবীদের এমন কয়েকজন রয়েছে যাদের বিরুদ্ধে মাদকের একাধিক মামলা রয়েছে।

গত ১ বছরে মতলব উত্তর থানা প্রশাসন ৬০ জন মাদক ব্যাবসায়ী ও সেবীকে আটক করাার মধ্যদিয়ে মাদক বন্ধের ব্যাপারে তাদের আন্তরিকতারই প্রমান মিলে। শুধু তাই নয়, গত ২০১২ সালের জানুয়ারী মাসের উপজেলা আইন শৃংখলা সভাতে রাজনীতিবিদদের একটি অংশ মাদকে জড়িয়ে গেছে তাদের বিরত কিংবা প্রতিহত করতে উপস্থিত স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তৎসময়ের ওসি রুস্তম আলী শিকদার পিপিএম।

উপজেলার বদরপুরে শাহ সোলেমান লেংটার মেলার ৭ দিন গাঁজার রমরমা বানিজ্য ও সেবনের ব্যাপারে বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ আলহাজ্জ সিরাজ-উদ-দ্দৌলাহ বলেন, ইসলাম ধর্মে মাদকের কোন স্থান নেই। কাজেই, ধর্মের দোয়াইতে মাদকের কোন প্রশ্রয় দেয়া যাবে না।
মতলব উত্তর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খান মোঃ এরফান বলেন, মাদকের সাথে কখনো আপোষ করিনি। আর সে কারনেই উপজেলাকে মাদকমুক্ত রাখতে আন্তরিকভাবে কাজ করছি।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply