কোরআন অবমাননার দায়ে মুরাদনগরে এক ভন্ডপীরের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ
মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুরে কোরআন ও রাসুল (সা:) কে অবমাননার দায়ে এক ভন্ডপীরের বিরুদ্ধে এলাকার হাজার হাজার লোক লোক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। সমাবেশে বক্তারা ঐ ভন্ডপীরের ফাসি দাবী করে। এর আগে গত মঙ্গলবার স্থানীয় লোকজন তাকে ধরে গন ধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করলে পুলিশ তাকে গত বুধবার ৫৪ ধারায় কুমিল্লা কোর্টে চালান করে।
সোমবার দুপুরে উপজেলার রামচন্দ্রপুরে মুরাদনগর, হোমনা ও বান্ছারামপুর উপজেলার লোকজন জড়ো হয়ে রামন্দ্রপুরের মৃত কালা মিয়ার ছেলে ও বাইশকাইট ব্যারিষ্টার রফিকুল ইসলাম মহাবিদ্যালয়ের প্রদর্শক ভন্ডপীর আলী আযমের (৪৫) বিরুদ্ধে ফাসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। সমাবেশে বক্তারা জানান ভন্ডপীর আলী আজম গত বেশ কয়েক বছর যাবত নিজেকে পীর দাবি করে আসছিলেন এবং কোরআন হাদিস ও রাসুল (সা:) সম্পর্কে নানারকম কুটূক্তি ও ইসলাম বিরোধী মন্তব্য ও প্রচারনা চালিয়ে আসছিল। এলাকাবাসি নানা সময় তাকে ইসলাম বিরোধী প্রচারনা না চালাতে নিষেধ করলেও তিনি তা তোয়াক্কা না করে ইসলাম ও কোরআন হাদিস বিরোধী প্রচারনা চালিয়ে আসছিলেন এরই জের ধরে গত মঙ্গলবার কয়েক গ্রামের ৫ হাজার মুছুল্লি,আলেম ও গ্রামবাসি একত্রিত হয়ে মিছিল নিয়ে তার বাড়ীতে আক্রমন করে তার আস্তানা ভাংচুর করে এবং ভন্ড পীর আলী আযমকে গনপিটুনি দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে ভন্ড পীর আলী আযমকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় । এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, ভন্ড পীর আলী আযম উঠতি বয়সের যুবক ও নারীদের নামাজ ও আল্লাহর বন্দীগি না করতে উৎসাহিত করতেন। অনেক নারী ও পুরুষকে মিথ্যে প্রলোভন দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিত টাকা-পয়সা। এবং প্রতি রাতে তার বাড়িতে চলত নারী পুরুষদের নিয়ে নাচগানের আসরের আয়োজন করতো এবং এখানে চলতো অনৈতিক কাজ। অনেক নারী তার লালসার শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। অনেক যুবক তার প্রলোভনে পরে সহায় সম্পত্তি হারিয়ে নিঃস হয়েছে। অনেক নারী-পুরুষ দিনরাত তার বাড়িতে অবস্থান করে পীরের খেদমতে ব্যস্ত থাকতেন। তার স্ত্রী ও পরিবারের সদস্যরা দীর্ঘদিন যাবত নারায়ণগঞ্জে অবস্থান করলেও তিনি সেখানে আসা-যাওয়া করতেন না।
চাপিতলা গ্রামের মুদি দোকানদার বাছির মিয়া জানান, ভন্ড পীর আলী আযম আমাকে মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে আমার কাছ থেকে ছয় লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে নিঃস্ব করে দিয়েছে, সে আমার মত আরও অনেক যুবককের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাদেরও নিঃস্ব করে দিয়েছে , আলী আযম অনেক নারীর ইজ্জত নষ্ট করেছে।
রামচন্দ্রপুর বাজার পাড়া জামে মসজিদের সভাপতি মো,মজিবর রহমান সরকার জানান, দীর্ঘ দিন যাবত আলী আযম নিজেকে পীর দাবী করে ইসলাম বিরোধী প্রচারনা চালিয়ে আসছিল নানা সময় আমরা তাকে নিষেধ করলেও সে শোনেনি উল্টো আমাদের ভয়ভীতি দেখাতেন, তার খপ্পরে পরে অনেক যুবক যুবতী বিপদ গামী হয়েছে । এলাকাবাসি তার অনৈতিক কর্মকান্ডে অতিষ্ঠ হয়ে গনপিটুনি দিয়ে পুলিশে দিয়ে দিয়েছে ।
রামচন্দ্রপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা জাবেদুর রহমান জানান, দীর্ঘদিন যাবত ভন্ড পীর আলী আযম কোরআন হাদিসের মিথ্যা ব্যাখ্যা ও অবমাননাকর কথাবার্তা বলে আসছিল। প্রতিবাদ করলে তার ভক্তরা নানাভাবে আমাদের ভয়ভীতি দেখাত। সে মুসলমান হয়েও ভিন্ন ধর্মের রীতিনীতি পালন করতো।
রামচন্দ্রপুর দারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মজিবুর রহমান জানান, পীর দাবিকারী আলী আযম একজন ভন্ড লোক। মানুষকে মিথ্যে প্রলোভন দেখিয়ে ভুলপথে ধাবিত করার চেষ্টা করছিলেন। আল্লাহ ও নবী রাসূল সম্পর্কে বিভিন্ন রকম বাজে কথাবার্তা বলে আসছিল। বিভিন্ন উঠতি বয়সের যুবকদের নানারকম প্রলোভন দেখিয়ে বিপথগামী করে আসছিল।
মুরাদনগর থানার উপ-পরিদর্শক নুরুল আমিন জানান, আলী আযম নামের একজনকে এলাকাবাসী পিটুনি দিয়ে আমাদের কাছে সোপর্দ করেছে,তাকে ৫৪ ধারায় আদালতে পাঠানো হয়েছে । তার বিরুদ্বে নিয়মিত মামলা দায়েরের জন্য উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের অনুমতি চাওয়া হয়েছে ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply