ডা. সৈয়দ আব্দুল্লাহ মো. তাহেরকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে লাকসামে জামায়াত শিবিরের বিক্ষোভ

জামাল উদ্দিন স্বপন:
বৃহস্পতিবার সকাল ১০ ঘটিকায় অবৈধ যুদ্ধাপরাধ টাইবুনাল ভেঙ্গে দেওয়া ও ইসলামী ছাত্র শিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও বিদেশ বিষয়ক সম্পাদক, কুমিল্লা-১১ চৌদ্দগ্রাম আসনের সাবেক এমপি ডা. সৈয়দ আব্দুল্লাহ মো. তাহেরকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্র শিবির লাকসাম পৌরসভার উদ্দ্যেগে লাকসাম পৌরসভা সেক্রেটারী আনোয়ার হোসেন ফারুক ও শিবির সেক্রেটারী শাহাদাত হোসেন এর নেতৃত্ত্বে এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয় । উক্ত মিছিলটি লাকসামের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পশ্চিমগাও সমাবেশে মিলিত হয়।
সমাবেশে শিবির সেক্রেটারী শাহাদাত হোসেন এর পরিচালনায় জামায়াতের পৌরসভা সেক্রেটারী আনোয়ার হোসেন ফারুক বক্তব্য রাখেন।
বক্তব্যে তিনি বলেন, বর্তমান জালিম সরকার সম্পূর্ন অন্যায়ভাবে হয়রানি করা এবং রাজনৈতিক ফয়দা হাসিলের উদ্দেশ্যে আমাদের শিষ্য নেতাদের য্দ্ধুাপরাধ মামলা দিয়ে কারাগারে বন্দি করে রেখেছে। এবং গত দিন সন্ধায় ফ্যাসিষ্ট কায়দায় আমাদের কুমিল্লার গনমানুষের নেতা ডা সৈয়দ আব্দুল্লাহ মো. তাহেরকে গ্রেফতার করে। ডা সৈয়দ আব্দুল্লাহ মো. তাহের সহ আওয়ামী সরকার সারা দেশে ধারাবাহিকভাবে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে আগুন নিয়ে খেলায় মেতে উঠেছে। ক্ষমতায় আসার পর থেকেই তারা বাকশালী কায়দায় জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার-নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। শিবিরকে দমন করতে ন্যক্কারজনকভাবে সারা দেশে চিরুনি অভিযান চালিয়েছে। সাবেক এপি ডা. সৈয়দ আব্দুল্লাহ মো. তাহেরকে গ্রেফতার সরকারের ধারাবাহিক দমন নীতিকেই প্রমাণিত করে। নেতৃবৃন্দকে গ্রেফতারের মাধ্যমে তারা সারা দেশের আন্দোলনরত জনতাকে ক্ষুব্ধ করে তুলেছে।
তিনি আরো বলেন, অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত সকল নেতাকর্মীকে মুক্তি না দিলে দেশব্যাপী সরকার পতনের কঠোর কর্মসূচী দেয়া হবে। একদিকে সরকার প্রহসনের বিচার চালানোর মাধ্যমে দেশের তাওহীদী জনতার হৃদয়ে আঘাত দিয়েই চলছে অপরদিকে এভাবে গ্রেফতার-নির্যাতন করে জনগণকে রাজপথে নামতে বাধ্য করেছে। জনগণ যখন রাজপথে নেমেছে তখন গ্রেফতারকৃত সকল নেতাকর্মীকে সাথে নিয়েই ঘরে ফিরবে।
নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, নির্যাতন করে আন্দোলন দমানো যাবে না। জামায়াত-শিবিরকে এ দেশের মানুষ হৃদয়ে ধারণ করেছে। কোনভাবেই মানুষ থেকে জামায়াত-শিবিরকে বিচ্ছিন্ন করা যাবে না। সরকারের উচিত হবে নিজের ভুলের ক্ষমা চেয়ে জনদাবি মেনে জামায়াতের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে মুক্তি দেয়া।
উক্ত সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন শিবিরের লাকসাম পূর্ব শাখার সভাপতি- ফয়েজুর রহমান,সাহাব উদ্দীন,আবু সাইদ, লোকমান হোসাইন, আমিমুল ইহসান প্রমুখ।

Check Also

লাকসাম-মনোহরগঞ্জের বিএনপি’র সাবেক এমপি আলমগীরের জাতীয় পার্টিতে যোগদান

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা-১০ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) বিএনপি’র সাবেক এমপি এটিএম আলমগীর জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন। সোমবার জাতীয় ...

Leave a Reply