লাকসাম বিদ্যুৎ অফিস নানাহ সমস্যায় জর্জরিত

লাকসাম (কুমিল্লা) /১৮ ডিসেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম)——-
নানাহ সমস্যায় জর্জরিত লাকসাম বিদ্যুৎ অফিস। লোকবল, আবাসন, যানবাহন সংকট, পুরাতন যন্ত্রপাতিসহ বিভিন্ন সমস্যার কারনে লাকসাম বিদ্যুৎ অফিসের সেবার মান ভেঙ্গে পড়েছে। কুমিল্লার জেলার অতি গুরুত্বপূর্ন ও শিল্প অঞ্চলখ্যাত লাকসাম উপজেলা।এ উপজেলায় ছোট বড় শতাধিক শিল্প প্রতিষ্ঠান অনেক আগেই গড়ে উঠেছে। বিদ্যুৎতের চাহিদা বাড়ার সাথে সাথে সরবরাহ না করার কারনে উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এ উপজেলায় ভাইয়া গ্র“প, আবুল খায়ের গ্র“পসহ একাধিক কোম্পানী ছোট বড় অনেক শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপন করে। শিল্প প্রতিষ্ঠানের চাহিদামত বিদ্যুৎ সরবরাহ না করার কারনে প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগে জেনারেটর দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করে প্রতিষ্ঠান চালানোর কারনে উৎপাদন খরচ অনেক বেড়ে গিয়েছে। লাকসাম বিদ্যুৎ অফিসের আওতাধীন প্রায় ১৬ হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহক রয়েছে। যথাক্রমে আবাসিক ১১ হাজার ৮’শ ৯২, বানিজ্যিক ২ হাজার ৭’শ ১৩, সেচ ৪’শ৬৩, শিল্প ২০টি, সংযোগ থাকার কারনে প্রায় ৯ মেগোওয়াট বিদ্যুতের চাহিদার পরিবর্তে ৪.৫০ মেগোওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ হওয়ার কারনে আবাসিক, বানিজ্যিক সেচ, ক্ষুদ্রশিল্প ও বৃহত্তরশিল্প প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুতের অভাব থাকায় জনগণের ভোগাšিত ও উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এ অফিসের আওতায় ১৬ হাজার মিটার সংযোগের জন্য মিটার রিডার ১২ জনের পরিবর্তে ২জন থাকায় নিয়মিত রিডিং কালেশন সম্ভব না হওয়ায় বিদ্যুৎ চুরি হিড়িক বেড়ে গিয়েছে এবং বিভিন্ন দপ্তরের ৫২ জন লোকের পরিবর্তে ৩০ জন লোক থাকায় প্রত্যেক দপ্তরই কার্যক্রম পরিচালনায় ব্যাঘাত ঘটছে। মান্দাতার আমলের ২টি পরিবহন হওয়ার কারনে দ্রুত গতিতে সেবা দিতে গিয়ে অনেক সময় হিমশিম খেতে হচ্ছে। কর্মকর্তা কর্মচারীদের আবাসন ব্যবস্থা না থাকায় যত্রতত্র ভাবে আবাসন করায় সেবা দিতে গিয়ে প্রায়শই নানা রকম সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। পাশাপাশি এ অফিসের অধীনে অনেক সম্পত্তি আবাসিক ও বানিজ্যিক স্থাপনা নির্মান করে প্রভাবশালীরা দখল নিয়েছে। লাকসাম বিদ্যুৎ অফিস বিগত ১৯৮৭ সালে উদ্বোধনের পর থেকে সরকারী ভাবে বরাদ্দ না থাকায় পুরাতন এ ঝুঁকিপূর্ন ভবনে কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হচ্ছে।
এসব ব্যাপারে লাকসাম বিদ্যুৎ অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী এ.টি.এম শহীদুল্লাহ ভূঁইয়া (অতিরিক্ত দায়িত্ব) জানান, দীর্ঘদিন যাবত সরকারী ভাবে লোকবল নিয়োগ না থাকার কারনে কম সংখ্যক লোকবল দিয়েই গ্রাহক সেবা দিতে হচ্ছে। পাশাপাশি বিদ্যুতের চাহিদার চেয়ে কম বিদ্যুৎ পাওয়ায় গ্রাহকদের ঠিকভাবে সেবা দিতে গিয়ে প্রতিনিয়তই প্রতিকুলতার স্বীকার হতে হচ্ছে। উল্লেখিত সমস্যাগুলো সমাধান হলে বিদ্যুৎ গ্রাহকদের সমস্যা লাঘব করা সম্ভব হবে।

আবদুর রহিম
লাকসাম, কুমিল্লা

Check Also

দাউদকান্দিতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

হোসাইন মোহাম্মদ দিদার :কুমিল্লার দাউদকান্দিতে শান্তা বেগম (২৪) নামে এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। ...

Leave a Reply