কাগুজে কলমে আমিই সংসদ সদস্য উন্নয়নকাজ যে-ই করুক আমার হিসাবের খাতায় জমা হবে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া /১৫ ডিসেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম)——-
শনিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ নির্বাচনী এলাকায় জেলার সরাইল উপজেলার চুন্টা ইউনিয়নে বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা, মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাণনা স্মারক প্রদান ও উন্নয়নমুলক প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হয়ে আসেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি র. আ. ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে রাখা এই এলাকার সংসদ সদস্য ও জাপার কেন্দ্রিয় ভাইস চেয়ারম্যান এবং আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধাকে। শুধু তা-ই নয়, অতিথি তালিকায় (ব্যানার) এমপি জিয়াউল হক মৃধার নামের উপরে বিশেষ অতিথি হিসেবে নাম লিখা হয় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড. আলহাজ্ব সৈয়দ এ.কে.এম এমদাদুল বারী’র নাম। বিষয়টি নিয়ে জাতীয় পার্টির স্থানীয় নেতা-কর্মীদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ সহ এলাকায় নানা শ্রেণী পেশার মানুষের মধ্যে মুখরোচক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এসময় অনেকে প্রশ্ন তুলেন-কে বড় ? “জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাকি সংসদ সদস্য”। এ বিষয়ে এই অনুষ্ঠান আয়োজকদের মধ্যে অন্যতম আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলামের পি.এ পরিচয়দানকারী চুন্টা গ্রামের বাসিন্দা সমর চন্দ্র ভৌমিক জানান, উপর মহলের নির্দেশ মতো অতিথি তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে। এতে আমাদের (চুন্টা আওয়ামীলীগের) কিছুই করার ছিল না।
এদিকে অনুষ্ঠান শুরুর আগে উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি ৭০ লাখ টাকা ব্যায়ে সরাইল-অরুয়াইল রাস্তার রসুলপুর ব্রীজের পুনঃ নির্মাণ, ৩১ লাখ টাকা ব্যায়ে চুন্টা কালী মন্দির উন্নয়ন এবং প্রায় দেড় কোটি টাকা ব্যায়ে চুন্টা এলাকার ৭টি রাস্তার উন্নয়নকাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।
স্থানীয়রা জানান, চুন্টা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সোলমান কবিরের সভাপতিত্বে সকাল ১১টার দিকে অনুষ্ঠানের আলোচনা সভা শুরু হলে সাড়ে ১১টায় জাপা নেতা-কর্মীদের শোডাউন নিয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য জিয়াউল হক মৃধা অনুষ্ঠান স্থলে আসেন। পরে সভা চলাকালীন সময়ের মধ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য শেষে তিনি আবার সভাস্থল ত্যাগ করেন। এসময় সভায় জিয়াউল হক মৃধা তার বক্তব্যে বলেন, কাগুজে কলমে আমিই এই এলাকার সংসদ সদস্য। এখানে (সরাইলে) উন্নয়নকাজ যে-ই করুক না কেন, এসব আমার হিসাবের খাতায়ই জমা হবে। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীকে সরাইলে উন্নয়নের বার্তা নিয়ে আসার জন্য ধন্যবাদ জানান এবং সরাইলের আরও বেশকয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা নির্মাণের সহযোগিতাও চান জাপার এই এমপি।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী দলীয় প্রভাব জাহির করতে গিয়ে বলেন, এখানকার সংসদ সদস্য জিয়াউল হক মৃধা এই এলাকার নানা উন্নয়নে চেষ্টা করেছেন, কিন্তু তিনি পারেননি। তাই আমি সরাইলের নানা উন্নয়নে এগিয়ে এসেছি। তাছাড়া অতীতেও আমি সরাইলে বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করেছি।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড. আলহ্জ্ব সৈয়দ এমদাদুল বারী, জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মেজর (অবঃ) জহিরুল ইসলাম বীর প্রতীক, কেন্দ্রিয় স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি মঈন উদ্দিন মঈন, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল বারী চৌধুরী, সরাইল উপজেলা পরিষদ ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. শাহজাহান মিয়া প্রমূখ।
এদিকে উপজেলা আওয়ামীলীগের একাধিক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, আগামী সংসদ নির্বাচনে উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী আওয়ামীলীগ প্রার্থী হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসন থেকে নির্বাচন করার চিন্তা ভাবনা রয়েছে। অপরদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসন থেকে আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম নির্বাচন করবেন।

আরিফুল ইসলাম সুমন

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply