মেঘনা উপজেলা আওয়ামীলীগের ১২ ডিসেম্বর ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন

মেঘনা / ৯ ডিসেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম)——–
মেঘনা উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে ১২ ডিসেম্বর। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বীর বাহাদুর এমপি, বিশেষ অতিথি থাকবেন মেজর জেনারেল (অবঃ) সুবেদ আলী ভূইয়া এমপি, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল আওয়াল সরকার, সাধারন সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম সরকার, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মোঃ হুমায়ন মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক বাদল রায়। অনুষ্ঠানসূচী দুটি পর্বে সকাল ১০টায় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন, অতিথিবৃন্দের আসন গ্রহন, কোরআন তেলওয়াত, শোক প্রস্তাব, সাধারন সম্পাদকের রিপোর্ট, বিশেষ অতিথি বৃন্দেও বক্তব্য, প্রধান অতিথির বক্তব্য, সভাপতির বক্তব্য। দ্বিতীয় অধিবেশন বিকাল ৩টায় উপজেলা আওয়ামীলীগ কাউন্সিলর বৃন্দের উপস্থিতিতে কাউন্সিল অধিবেশন শুরু হবে উপজেলা অডিটরিয়ামে। সম্মেলনকে সামনে রেখে মেঘনা উপজেলা আওয়ামী লীগের একাধীক প্রার্থী সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছে। এরা হচ্ছেন- আহ্বায়ক মেঘনা উপজেলার আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতা এবং বর্তমান মেঘনা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল আলম, মেঘনা উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক বর্তমান সদস্য সচিব ডাঃ মোঃ খোরশেদ আলম সরকার। এছাড়া সাধারণ সম্পাদক পদে যারা মাঠে ময়দানে রয়েছেন, এরা হচ্ছেন মেঘনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য সচিব আবদুস সালাম, মেঘনা উপজেলা বাস্তবায়ক কমিটির সাবেক সাধারন সম্পাদক এবং আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ সাইফুল্লাহ মিয়া রতন শিকদার, চন্দনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আহসানউল্লাহ মাষ্টার, মানিকারচর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ হারুন-ওর-রশীদ। সরেজমিনে কাউন্সিলরদের সাথে আলাপকালে জানা গেছে- এই উপজেলায় জন্ম মেঘনা উপজেলা বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল আলমের। সেজন্য তারা দলীয়ভাবে সৎ, যোগ্য ও সাংগঠনিক ব্যক্তিকে সভাপতি ও সম্পাদক নির্বাচিত করতে চায়। যারা নির্বাচিত হয়ে দল ও মানুষের কল্যাণে কাজ করবে এবং দলীয়ভাবে দলের কার্যক্রমকে সুসংগঠিত করবে। এদিকে বহুল প্রতিক্ষিত মেঘনা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে কে হচ্ছেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এদিকে তাকিয়ে আছে পুরো মেঘনাবাসী। আগামী ১২ ডিসেম্বর মেঘনা উপজেলা ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে কেন্দ্র করে এলাকায় উৎসবে মুখর পুরো উপজেলা সর্বত্র। বিগত দিনে মেঘনা উপজেলার আওয়ামীলীগের সদস্য ও কর্মীরা নিক্রিয় ছিল অনেকটা, মেঘনা উপজেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ কর্মীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে সামনে রেখে দলীয় নেতা-কর্মীরা এবং ১৮৩ জন কাউন্সিলর(ভোটার)ও মধ্যে চলছে সাজ সাজ রব। প্রার্থীরা বিজয় সুনিশ্চিত করতে ভোটারদের সাথে চালিয়ে যাচ্ছেন জোর লভিং তদবীর। স্বাধীনতার পর মেঘনা উপজেলা আওয়ামীলীগ গত ৪১ বছরে বর্তমান আহ্বায়ক কমিটিসহ ৩টি আহ্বায়ক কমিটি দ্বারা পরিচালিত হয়ে আসছে। নিয়মিত সম্মেলন না হওয়ার বিষয়ে তৃণমূলপর্যায়ে নেতা-কর্মীরা বলেন, আওয়ামীলীগের দূঃসময় কিংবা ক্ষমতার বাহিরে থাকাকালে নেতৃত্ব শূন্যতা ও অনিহার কারনে সম্মেলন করা সম্ভব হয়নি। অপর দিকে আওয়ামীলীগের সুদিনে অথবা ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে সুবিধা ভোগী ও হাইব্রিড নেতাদের গ্র“পিং, অভ্যন্তরীণ কোন্দল এবং নিক্রিয়তার কারনে দীর্ঘ দিন ধরে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়নি। উপজেলা সম্মেলনকে সামনে রেখে ৮টি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা হয়। বিগত দিনে অধিকাংশ ইউনিয়ন কমিটি ঢাকাস্থ কোন এক নেতার বাসায় বসে গঠন করা হয়েছে। কিন্তু বর্তমান আহ্বায়ক কমিটিতে উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল আলম আহ্বায়ক হওয়ায় মেঘনা আওয়ামীলীগের নেতা ও কর্মীদের মাঝে প্রান ফিরে আসে। প্রতিটি ইউনিয়নে মাঠ পর্যায়ে নেতা ও কর্মীদের নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়। যেসব নেতা-কর্মীরা দল করতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছিল, এরা এখন দলের প্রতি মাঠ পর্যায়ে কাজ করার আগ্রহ ফিরে পেয়েছে। ১৯৯৮ সালে মেঘনা উপজেলার আহ্বায়ক কমিটিতে আহ্বায়ক ছিল ডাঃ মোঃ খোরশেদ সরকার। ২০০২ সালে আহ্বায়ক কমিটিতে ২জন আহ্বায়ক ছিল ডাঃ মোঃ খোরশেদ আলম সরকার ও মোঃ দুধ মিয়া, সদস্য সচিব আবদুস সালাম। ২০১১ সালে আহ্বায়ক কমিটিতে আহ্বায়ক করা হয় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল আলম ও সদস্য সচিব ডাঃ মোঃ খোরশেদ আলম সরকার। মোঃ শফিকুল আলমের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় মেঘনা উপজেলায় তৃণমূল পর্যায়ে নেতা কর্মীরা আওয়ামীলীগের মাঠ গুটিয়ে নিতে পেরেছে বলে অনেকেই মত প্রকাশ করেছেন। আসন্ন মেঘনা উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্ধি মেঘনা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল আলম বলেন, আমি মেঘনা উপজেলা আওয়ামীলীগের আহ্বায়কের দায়িত্ব পাওয়ার পর আমি যা করেছি তা দলের স্বার্থে এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃত্বের সমন্বয়ে করেছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে সমুন্নত রাখতে এবং জণনেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে প্রতিষ্ঠায় উপজেলা সম্মেলনের পরিবেশ তৈরী করেছি। আমি আশাবাদী আসন্ন উপজেলা কমিটির সম্মেলনে কাউন্সিলরদের ভোটের মাধ্যমে সৎ, যোগ্য ও পরীক্ষিত নেতৃত্ব নির্বাচিত হবে। যারা আগামী দিনের ভবিষৎ পরিকল্পনা ও কর্মকান্ড সুচারুরুপে পালন করবে। অনেক কাউন্সিলরদের সাথে আলাপকালে বলেন, মেঘনা উপজেলা ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে আমরা সভাপতি হিসেবে উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল আলমকে চূড়ান্ত করে রেখেছি। সাধারন সম্পাদক হিসেবে মোঃ সাইফুল্লাহ রতন শিকদার ও আবদুল সালামের মাধ্যে হাড্ডা হাড্ডি লড়াই হবে। অনেক কাউন্সিলারদের মতে মোঃ সাইফুল্লাহ রতন শিকদার সাধারন সম্পাদক হওয়ার সম্ভাবনাই বেশী।

মোঃ ইসমাইল হোসেন মানিক
মেঘনা প্রতিনিধি

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply