ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তুচ্ছ ঘটনায় দফায় দফায় সংঘর্ষে আহত-২৫:: রাবার বুলেট-টিয়ারশেল নিক্ষেপ ॥ ১২ দোকান ভাংচুর

ব্রাহ্মণবাড়িয়া / ১ ডিসেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম)———
ছিনতাইকরা চেইন নেয়ার ঘটানাকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার ৩ টি মহল্লার যুবকদের মধ্যে গত ৩’দিন ধরে দফায় দফায় সংঘর্ষে ২৫জন আহত হয়েছে। এ সময় ১২টি দোকান ভাংচুর ও লুটতরাজ করা হয়। সংঘর্ষ চলাকালে ৩০/৩৫টি ককটেলের বিষ্ফোরন ঘটিয়ে এলাকায় আতংকের সৃষ্টি করে দাঙ্গাবাজরা। পুলিশ ১০/১৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। ঘটনাস্থলে থেকে ২ যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার থেকে গতকাল শনিবার দুপুর পর্যন্ত পৌর এলাকার দিঘীর পাড় , মধ্যপাড়া , পৈরতলার মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়।
এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, মধ্যপাড়ার বর্ডার বাজার এলাকার জনৈক সজলের গলার চেইন গত কয়েকদিন আগে ছিনতাই করে একই মহল্লার দিঘীরপাড় প্রিজন ও তার সহযোগীরা। গত বৃহস্পতিবার এ ঘটনার জের ধরে মধ্যপাড়ার দিঘীরপাড় ও পালপাড়ার যুবকদের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। পরে দিঘীর পাড়ের যুবকরা মধ্যপাড়ায় হামলা করে এবং বর্ডার বাজারের একটি হোটেল ভাংচুর করে । শুক্রবার সন্ধ্যায় তারা মধ্যপাড়া পাল পাড়ায় হামলা করে কয়েকটি ককটেল এর বিষ্ফোরণ ঘটায় এবং বর্ডার বাজারের মুদি, টেইলার্স ও খাবার হোটেলসহ ১২ টি দোকান ভাংচুর করে । শুক্রবার রাতে উত্তর পৈরতলা গ্রামের এক সালিশকারককে লাঞ্চিত সহ ২ জনকে আহত করে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে পৈরতলা গ্রামের যুবকরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। তারা দিঘীরপাড় এলাকায় হামলা চালানোর চেস্টা করলে পুলিশের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময়ে ১৫ জন আহত হয়।
আহতদের মধ্যে দিঘীরপাড় এলাকার লোকমান-(২৫) ও উত্তর পৈরতলা এলাকার বাচ্চু মিয়া-(৪০) কে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া উত্তর পৈরতলা এলাকার দিলু মিয়া ও ছোটন মিয়াসহ বাকিদের জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ঘটনার জের ধরে গতকাল শনিবার দুপুর ১২টার দিকে উত্তর পৈরতলা বিক্ষুব্ধরা হামলার চেস্টা করে। তখন ২০/২৫টি ককটেলের বিষ্ফোরন ঘটিয়ে এলাকায় আতংকের সৃষ্টি করে । এসময় ১০জন আহত হয়। বর্ডার বাজারের সকল দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। মানুষ দ্রুত দিক বেদিক পালিয়ে যায়। মধ্যপাড়া-পৈরতলা সড়কে সকল প্রকার যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ১০/১৫টি রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ২ যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়।
এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুর রবের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আনতে ১০/১৫ রাউন্ড টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করা হয়েছে। না গুনে এর সঠিক পরিমান বলা যাবেনা। তিনি বলেন, পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রনে আছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে ও ঘটনাস্থল থেকে ২ যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply