শান্তিপূর্ণভাবে ১৬টি কেন্দ্রে শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত:: তিতাসে ৯ মাসে ঝড়ে পড়েছে ২৭০ জন ক্ষুদ্রে শিক্ষার্থী

তিতাস / ২৩ নভেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম)———
পঞ্চম শ্রেণীর প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা সারা দেশের ন্যয় তিতাস উপজেলার ১৬টি কেন্দ্রে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে চলছে। গত মার্চ থেকে নভেম্বর মাস পর্যন্ত শুধু পঞ্চম শ্রেণী থেকে ঝড়ে পড়েছে ২৭০ জন শিক্ষার্থী।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ১৬টি কেন্দ্রে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৩৯৫৭ জন পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ১৯৬ জন ও ইবতেদায়ী শাখায় ৪৮১ জনের মধ্যে ৭৪ জন অনুপস্থিত হয়েছে। পরিসংখ্যানে দেখা যায়, উপজেলার চরকুমারীয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৩১১ জনের মধ্যে ২২ জন, জগতপুর (পূর্ব) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ২৩৬ জনের মধ্যে ৮ জন, বাতাকান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৫৩ জনের মধ্যে ২ জন, কালাইগোবিন্দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৩২২ জনের মধ্যে ১২ জন, বন্দরামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ২৪২ জনের মধ্যে ১৮ জন, কড়িকান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ২৭৫ জনের মধ্যে ৬ জন, মাছিমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৩৫৪ জনের মধ্যে ৪২ জন, ইসলামাবাদ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৩৮১ জনের মধ্যে ২৫ জন, কদমতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৮৪ জনের মধ্যে ৬ জন, নারান্দিয়া (উত্তর) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৩২৯ জনের মধ্যে ১২ জন, জিয়ারকান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ২৬৬ জনের মধ্যে ১২ জন, গোপালপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৭০ জনের মধ্যে ৫ জন, মজিদপুর (পূর্ব) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ২৩২ জনের মধ্যে ৭ জন, লালপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৮১ জনের মধ্যে ১০ জন, দড়িগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৫৩ জনের মধ্যে ৯ জন অনুপস্থিত রয়েছে। উপজেলার একমাত্র গাজীপুর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৬৮ জন শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয় শাখায় সকলেই উপস্থিত রয়েছে, তবে ইবতেদায়ী শাখায় ৬৩ জনের মধ্যে অনুপস্থিত রয়েছে ১৯ জন। এবতেদায়ী শাখায় চরকুমারীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৬৮ জনের মধ্যে ২ জন, জগতপুর (পূর্ব) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ২৮ জনের মধ্যে ৪ জন, কালাইগোবিন্দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৩৭ জনের মধ্যে ১০ জন, বন্দরামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ২১ জনের মধ্যে ২ জন, মাছিমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৭২ জনের মধ্যে ১৫ জন, জিয়ারকান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৪৮ জনের মধ্যে ১১ জন, মজিদপুর (পূর্ব) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৭৬ জনের মধ্যে ৮ জন ও দড়িগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৬৯ জনের মধ্যে ৩ জন অনুপস্থিত রয়েছে। এ বছরের মার্চ মাসে উপজেলা শিক্ষা অফিসে জমাকৃত ডি.আর অনুযায়ী প্রাথমিক বিদ্যালয় শাখায় ৩৯৫৭ ও এবতেদায়ী শাখায় ৪৮১ জন তালিকাভূক্ত হলেও বর্তমানে প্রাথমিক বিদ্যালয় শাখায় ৩৭৬১ ও এবতেদায়ী শাখায় ৪০৭ জন পরীক্ষা দিচ্ছে।

নাজমুল করিম ফারুক
তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply