স্ত্রী’র যৌতুক মামলায় কারাগারে আটক জনকণ্ঠের সাংবাদিক শাকিল মোল্লার জামিনের শুনানী পিছিয়েছে

কুমিল্লা / ২৩ নভেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম)———
কুমিল্লার আদালতে স্ত্রীর যৌতুক আইনে দায়েরকৃত মামলায় বর্তমানে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক দৈনিক জনকণ্ঠের কুমিল্লা নিজস্ব সংবাদদাতা মো: শাকিল মোল্লার জামিনের শুনানী পিছিয়েছে। বৃহস্পতিবার শাকিল মোল্লার পক্ষে তার আইনজীবিরা কুমিল্লা বিজ্ঞ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিনের শুনানীর জন্য আবেদন করলে (মিস কেইস নং ৪০৪৩) বিজ্ঞ আদালত জামিনের শুনানী না করে ডিসেম্বরে আদালতের অবকাশকালীন সময়ে জামিনের শুনানীর জন্য সময় নির্ধারণ করেন। গত ১৯ নভেম্বর স্ত্রী হেপী আক্তারের যৌতুক মামলায় জামিন না মঞ্জুর শাকিল মোল্লাকে কারাগারে প্রেরণ করেছিল বিজ্ঞ আদালত।
জনকণ্ঠের সাংবাদিক শাকিল মোল্লার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত বছরের ২ ডিসেম্বর কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার হেপী আক্তারের সাথে তিতাস উপজেলার কাউরিয়ার চর গ্রামের মৃত মোস্তফা মোল্লার ছেলে জনকণ্ঠের সাংবাদিক শাকিল মোল্লার ৪ লাখ টাকা দেনমোহরে সামাজিকভাবে বিয়ে সম্পন্ন হয়। কিন্তু বিয়ের পর শাকিল স্ত্রীর পরিবারের নিকট জমি কেনার জন্য ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। কিন্তু যৌতুক দিতে না পারায় চলতি বছরের গত ১ জুন জুন হ্যাপী আক্তারকে মারধর করে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। পরে গত ৪ জুলাই হ্যাপী আক্তার আদালতে শাকিল মোল্লার বিরুদ্ধে যৌতুক আইনে মামলা দায়ের করেন। যার নং ৫৪৬/২০১২। এছাড়াও হ্যাপী আক্তার গত ২৭/০৮/২০১২ ইং তারিখ মোকাম কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া থানার সহকারি জজ ও পারিবারিক আদালতে দেনমোহর ও খোরপোষ বাবদ ৩ লাখ ৯০ হাজার টাকা আদায়ে বিবাদী শাকিল মোল্লার বিরুদ্ধে আরো একটি মামলা দায়ের করে। যার নং পারিবারিক ১০/২০১২। শাকিল মোল্লা যৌতুক মামলায় উচ্চ আদালত থেকে ৪ মাসের জামিন লাভ করেন। কিন্তু জামিনের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় পূনরায় জামিনের জন্য গত ১৯ নভেম্বর সোমবার কুমিল্লার বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট সেলিনা আক্তারের আদালতে হাজির হাজির হলে উভয় পক্ষের শুনানী শেষে বিজ্ঞ আদালত শাকিল মোল্লার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের আদেশ প্রদান করেন। এ বিষয়ে মামলার বাদিনী হেপী আক্তার জানান, যৌতুক মামলায় অভিযুক্ত শাকিল মোল্লা কয়েক দফায় কুমিল্লার সিনিয়র সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে মৌখিক-আপোষ মীমাংশায় উপনীত হয়ে আমাকে ঘরে তোলার নামে কৌশলে এরই মধ্যে তার বিরুদ্ধে দেনমোহরের মামলাটি আমার মাধ্যমে প্রত্যাহার করিয়ে নেয়। কিন্তু অতিগোপনে ও কৌশলে সে একটি তালাকনামা সৃজন করে আদালতে জমা দিয়ে আইনজীবির মাধ্যমে জামিন পাওয়ার ব্যার্থ চেষ্টা করে। কিন্তু আইনজীবিরা এহেন প্রতারনার বিষয়টি আদালতের নজরে আনার পর তার বিজ্ঞ আদালত তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণ করে। বাদী পক্ষে ওই মামলাটি পরিচালনা করেন কুমিল্লা আইনজীবি সমিতির এজিএস এডভোকেট খন্দকার মিজানুর রহমান।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply