দক্ষিণ আফ্রিকায় নিহত বাংলাদেশী ব্যবসায়ী শেখ ফরিদের লাশ দেশে এসেছে ॥ পরিবারে শোকের মাতম

দাউদকান্দি / ৩ নভেম্বর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম)———-
গত ২৯ অক্টোবর সোমবার দক্ষিণ আফ্রিকার জোহান্সবার্গে ঐদেশী সান্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর গ্রামের হাজী মোসলেম ব্যাপারীর পুত্র শেখ ফরিদের লাশ গত ২ নভেম্বর শুক্রবার তার বাড়ীতে আনা হয়েছে। সকাল ১১টায় গৌরীপুর মসজিদ মাঠে সহস্রাধিক লোক জায়নাজা শেষে তার পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।
ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে লাশ গ্রহণ করতে গিয়েই তার স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। শেখ ফরিদের লাশ গ্রামের বাড়ি গৌরীপুরে পৌঁছলে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। তাকে দেখার জন্য কয়েক গ্রামের শত শত নারী-পুরুষ শেখ ফরিদের বাড়ীতে উপস্থিত হয়ে তার বাবা-মাকে সান্ত¦Íনা দিতে গিয়ে অনেকে নিজেরাই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।
৫ ভাই ৩ বোনের মধ্যে সবার ছোট শেখ ফরিদসহ ৩ ভাই দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্যবসায় নিয়োজিত ছিল বলে জানা যায়। ২৯ অক্টোবর সন্ত্রাসীরা জোহান্সবার্গে তাদের ৬টি দোকানে হামলা চালিয়ে ব্যাপক লুটপাট এবং প্রায় অর্ধ্ব কোটি টাকাসহ দামী মালামাল নিয়ে যাওয়ার সময় সন্ত্রাসীদের সাথে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে শেখ ফরিদ এবং তার নিকট আত্মীয় দোকানের কর্মচারী অলিউল্লাহ এবং ইউসূফ গুলিবিদ্ধ হয় বলে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে নিয়ে আসা শেখ ফরিদের লাশের বাহক সহোদর আবুল কাশেম জানায়। আবুল কাশেম বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকার সন্ত্রাসীরা এতটাই বেপোরোয়া হয়ে পড়েছে যে ওইদেশে বাংলাদেশের লোকদের পক্ষে ব্যবসা-বাণিজ্য করা খুবই কঠিন। ওইদেশের সন্ত্রাসীদেরকে নিয়মিত চাঁদা না দিলে কোন অবস্থাতেই ওইখানে ব্যবসা-বাণিজ্য করা সম্ভব নয়।
এদিকে শোকে পাথর হয়ে পুরো পরিবার কাঁদতে কাঁদতে কারো চোখে পানি আসেনা। নিহত শেখ ফরিদের বাবা-মা দুজনই বারবার মুর্ছা যান। বাড়িতে থাকা মেঝো ভাই মোঃ মাজেদ মিয়া কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ” আমার ভাই ফরিদরে তোর কথা মতো এ বিল্ডিং দিলাম তুই একটু দেখে যাইতি পারলিনা। আমরা কি কইরা এ বিল্ডিংয়ে থাকমু।”

শামীমা সুলতানা,দাউদকান্দি,

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply