আশুগঞ্জ বন্দরে মালবোঝাই আরো দুই জাহাজ ট্রান্সশিপমেন্টের অপেক্ষায় ভারতীয় বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভারী যন্ত্রপাতি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া / ১৬ অক্টোবর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম)———-
কয়লা ও সিমেন্ট কারখানার কেমিক্যাল (ফ্লাই অ্যাস) পরিবহনের পর এবার দেশের নৌপথ দিয়ে ভারতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভারী যন্ত্রপাতি। নৌ-প্রটোকল চুক্তি অনুযায়ী, বিদ্যুৎ কেন্দ্রের এসব মালামাল ভারতের আসাম রাজ্যে নিয়ে যাওয়া হবে। নৌপথে এ মালামাল পরিবহনে সরকার নতুন করে কোন রাজস্ব পাচ্ছে না। তবে নৌ-প্রটোকল চুক্তি অনুযায়ী সরকার প্রতিবছর এককালীন ১০ কোটি টাকা করে রাজস্ব পাবে। এ কথা জানিয়েছেন আশুগঞ্জ নদী বন্দরের রাজস্ব কর্মকর্তা সুমন মিয়া। আশুগঞ্জ নদী বন্দরের পরিবহন পরিদর্শক মো. শাহআলম জানান, সোমবার দুপুরে ভারতের কলকাতার খিদিরপুর নদীবন্দর থেকে ভারতীয় বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভারী মালামাল নিয়ে এমভি বিবিএসএমসি জাহাজে ২শ ৭০ মেট্রিক টন ও এমভি বার্জ মদিনা-৩ জাহাজে ২শ ২০ মেট্রিক টন মালামাল নিয়ে ২টি জাহাজ আশুগঞ্জ বন্দরে নোঙর করেছে। ১৯৭২ সালে নৌপ্রটোকলের চুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশের জাহাজ দিয়ে কলকাতার খিদিরপুর বন্দর থেকে মালামাল এনে আসাম রাজ্যে নিয়ে যাওয়া হবে। এদিকে জাহাজের মাষ্টার ও মালামাল পরিবহনকারী সংস্থা গালফ ওরিয়েন্ট সিওয়েজের আশুগঞ্জের ইনচার্জ সমীর মুখার্জী জানান, ভারতের ত্রিপুরায় রাজ্য সরকারের সহায়তায় নেটকো কোম্পানীর নতুন বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৪শ ৭০ মেট্্িরক টন মালামাল নিয়ে বাংলাদেশী বার্জ বিবিএফএমসি-২৫০টন এবং বার্জ মদিনা-২২০মেট্রিক টন মালামাল নিয়ে গত ১৯ সেপ্টেম্বর ভারতের কলকাতার ক্ষিদিরপুর নৌ-বন্দর থেকে রওয়ানা হয়ে সোমবার ২টি বার্জ আশুগঞ্জ বন্দরে নোঙ্গর করে। কাষ্টম এর কাজ শেষে ২/১ দিনের মধ্যে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের এসব মালামাল ট্রান্সশিপমেন্টের মাধ্যমে ভারতের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবে। তিনি আরও জানান, জাহাজের গভীরতা ১৮ ফুট, কিন্তু নদীর নাব্যতা মাত্র ৮ ফুট বিধায় আশুগঞ্জ বন্দরে বার্জ দু’টি নোঙর করতে হয়েছে।
এদিকে, এর আগে গত ৯ সেপ্টেম্বর এমবিবি ১১৬৫ জাহাজ ১ হাজার মেট্রিক টন সিমেন্ট কেমিক্যাল (ফ্লাই অ্যাস), ১৬ সেপ্টেম্বর এমভি গল্ফ ওরিয়েন্ট সিওয়েজের-৫ জাহাজ ১ হাজার মেট্রিক টন কয়লা, এমভি গল্ফ ওরিয়েন্ট সিওয়েজের-৩ জাহাজ ১ হাজার ২শ ২৫ মেট্রিক টন কয়লা ও একটি বার্জ দিয়ে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভারী মালামাল নিয়ে আশুগঞ্জ বন্দরে আসে। তবে এসব পণ্য আশুগঞ্জ থেকে নদী পথে আজমিরীগঞ্জ-শেরপুর হয়ে সিলেটের জকিগঞ্জ সীমান্ত হয়ে করিমগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে ভারতের আসাম রাজ্যে যাবে। আসামের কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য কয়লা ও সিমেন্ট ফ্যাক্টরির জন্য ফ্লাই অ্যাস নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

আরিফুল ইসলাম সুমন

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply