মতলবের হাট-বাজারে ফলজ ও বনজ গাছের চারা বিক্রির ধুম

মতলব উত্তর / ১৩ অক্টোবর (কুমিল্লাওয়েব ডটকম)———
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে এখন ফলজ ও বনজ গাছের চারা বিক্রির ধুম লেগেছে। গ্রামের সাধারন মানুষরা দ্রুত আর্থিক সাফল্য ও স্থানীয়ভাবে বেশ ক’টি নার্সারী গড়ে উঠার কারনেই এখানে ফলজ-বনজ গাছের চারা লাগানোর ব্যাপারে এখন অনেক মনযোগী। তাছাড়া, সামনে শীত মৌসুম চলে আসার কারনে এখন যেনো চারা বিক্রি ও লাগানোর ধুম লেগেছে।
সরেজমিনে উপজেলার আমিরাবাদ বাজার, আনন্দ বাজার, ছেংগারচর বাজার, সুজাতপুর বাজার, কালিপুর বাজার, গজরা বাজারসহ বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে ফলজ ও বনজ গাছের চারা বেচা-কিনির ভীর লক্ষ্যকরা গেছে।
কয়েকজন গাছের চারা বিক্রেতার সাথে কথা হলে তারা জানায়, গত ৭/৮ বছর আগেও আমাদের গাছের চারা এতো বিকি-কিনি হতো না। বর্তমানে বিকি-কিনি অনেক বেশী, তাইতো এখন মুনায়াও অনেক।
আনন্দ বাজারে গাছের চারা কিনতে আসা নুরে আলমের সাথে কথা হলে সে জানায়, কয়েকটা গাছের চারা লাগিয়েছি আরো কয়েকটা লাগানোর জন্যই চারা নিতে আসছি। এই ফলের গাছগুলো অল্প সময়েই ফলন আসে এবং বনজ চারাগুলো বড় হলে এর দাম অনেক হবে তাইতো এগুলো কিনতে আসা।
উপজেলার কয়েকজন নার্সারী মালিকের সাথে কথাবলে জানাগেলো, এই উপজেলায় বর্তমানে বনজ গাছের চারার মধ্যে মেহেগনি, আকাশমনি, সেগুন, লোহালম্বু আর ফলজ গাছের চারার মধ্যে কাজী পেয়ারা, বিভিন্ন জাতের আম, কাঠাল, লিচু, মুন্ডা, জলপাইসহ হরেক রকমের ফলফলাদির চারা বেশী বিক্রি হচ্ছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি অফিসার ছাইফুল আলমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, এখানকার কৃষি পরিবারের সাধারন মানুষরা বনজ ও ফলজ গাছ লাগালে আর্থিক লাভবান হবার বিষয়টি ভালভাবে উপলব্দি করেছে। আর সে জন্যই তারা এখন বিভিন্ন জাতের গাছের চারা লাগানোর ব্যাপারে খুবই উৎসাহী।

শামসুজ্জামান ডলার, মতলব উত্তর(চাঁদপুর)

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply