জাতীয় শোক দিবসে ব্রাহ্মণপাড়ায় আলোচনা সভা

ব্রাহ্মণপাড়া প্রতিনিধি ॥
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া আওয়ামীলীগের উদ্দ্যোগে গত বুধবার (১৫ আগষ্ট) জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে উপজেলা মিলনায়ততে এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক আইন মন্ত্রী এ্যাড: আবদুল মতিন খসরু এমপি, ব্রাহ্মণপাড়া আ’লীগের সভাপতি এ্যাড: দেওয়ান আবদুল জলিলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণপাড়া স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: আবু জাহের, অফিসার ইনচার্জ খান হুমায়ূন কবির, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল ইসলাম, ব্যারিষ্টার সোহরাব হোসেন খান চৌধুরী, শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলাম সরকার, মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা সারোয়ার খান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি ক্যাপটিন (মেরিন) জিয়াউল হাসান মাহমুদ, জমির হোসেন ঠিকাদার, যুবলীগের আহবায়ক সুলতান আহাম্মদ, ছাত্রলীগ সভাপতি হাবিব খান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মুমিনুল ইসলাম, কামাল হোসেন, ইসরাফিল ভূইয়া প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুল হক ও যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক রেজাউল করিম। এসময় বক্তাগণ ১৯৭৫ সালের এই দিনকে স্বরণ করে ইতিহাসের একটি কলঙ্কময় দিন হিসেবে আখ্যায়িত করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেষ মুজিবুর রহমানকে স্বাধীনতা বিরোধী চক্ররাই খুন করেছে । এই দিনে বঙ্গবন্ধু সহ ১৮ জন পরিবারের সদস্যগনকে কিছু বিপদগামী সেনা সদস্য নির্মম খাবে খুন করেছিল। আত্বস্বীকৃত এসব খুনীরা বিভিন্ন দেশে গা-ঢাকা দিয়ে লুকিয়ে ছিল। বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারের আইন মন্ত্রী থাকা কালীন আমার নেতৃত্বে ইতিহাসের জঘন্যতম কালো ইন্ডিমনিটি আইন বাতিল করে বঙ্গবন্ধু এই নির্মম খুনের বিচারের রায় ঘোষনা করা হয়েছিল। বিচারের রায় অনুযায়ী কয়েকজন খুনীকে ইতিমধ্যে শাস্তি প্রদান করলেও পলাতক খুনীরা এখনও ধরা ছোয়ার বাইরে রয়েছে। পলাতক খুনীদেরকে শীঘ্রই দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের রায় কার্য্যকর করার জন্য জোর দাবী জানান তিনি। এসময় প্রধান অতিথি ব্রাহ্মণপাড়ার চিকিৎসা সুবিধা বঞ্চিত রোগীদের কল্যানে ৪০ হাজার টাকার একটি চেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর করেন। এই ফান্ড থেকে গরিব ও অসহায় রোগীদের চিকিৎসা প্রদানের জন্য আহবান জানান। পরে বঙ্গবন্ধু এবং তার পরিবারের সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মুনাজাত করা হয়। মুনাজাতের শেষে ইফতারি হিসেবে প্যাকেট বিরিয়ানী বিতরণ করা হয়।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply