সরাইলে দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত : শিক্ষকসহ ৬৯ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের

আরিফুল ইসলাম সুমন ॥
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে দুই পক্ষের সংঘর্ষে পরিবহন শ্রমিক রিপন মিয়া (৩৫) নিহত হওয়ার ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ৬৯ জনকে আসামি করে সরাইল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে সরাইল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেনকে। নিহতের বড় ভাই আলম মিয়া বাদী হয়ে এ মামলা করেন।

মামলার এজহারে উল্লেখ করা হয়েছে, আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে রিপন মিয়াকে হত্যা করার জন্য অন্যান্য আসামিদেরকে হুকুম দেন। তার নির্দেশ পেয়েই আসামিরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে রিপনকে হত্যা করে। ওই মামলায় আরও অজ্ঞাতনামা ২০/৩০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে ষড়যন্ত্র করে একজন স্কুল শিক্ষককে এ মামলায় আসামি করা হয়েছে বলে এলাকার অভিভাবক মহল অভিযোগ করেছেন। ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্কুলের একাধিক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। এ প্রসঙ্গে মামলার প্রধান আসামি শিক্ষক আনোয়ার হোসেন বলেন, ঘটনার দিন আমি স্কুলে ছিলাম। এখন শুনতে পাচ্ছি আমাকে হত্যা মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে। কি উদেশ্যে আমাকে আসামি করা হলো বুঝতে পারছিনা।

সরাইল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আইয়ূব খাঁন বলেন বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি ও নতুন পুস্তক বিতরণ নিয়ে আমরা সবাই ব্যস্ত। ওই ঘটনার দিন আমরা সবাই বিদ্যালয়ে ছিলাম। অথচ আমার সহকারি প্রধান শিক্ষককে হত্যা মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে। এটি অন্যায় ও দুঃখজনক।

এ ব্যাপারে সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গিয়াস উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তদন্ত করে হত্যার সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার সকালে সরাইল উপজেলার সদর ইউনিয়নের পশ্চিম কুট্টাপাড়া গ্রামে দুই দল দাঙ্গাবাজ লোকেরা পরিবহন বিষয় নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে পরিবহন শ্রমিক রিপন মিয়া টেটাবিদ্ধ হয়ে নিহত হন। সংঘর্ষে আহত হয় অর্ধশতাধিক নারী-পুরুষ। এ ঘটনার পর থেকে পুলিশি গ্রেপ্তার এড়াতে পুরো এলাকা পুরুষ শূন্য হয়ে পড়ে।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply