সরাইলে বৃদ্ধার মুখবাঁধা লাশ উদ্ধার

সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি ॥
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরাইল উপজেলার চুন্টা ইউনিয়নের নরসিংহপুর গ্রামে এক বৃদ্ধা রহস্যজনকভাবে খুন হয়েছে। গত বুধবার রাতে নিহতের লাশ গ্রামের মেঘনা নদীর পাড় থেকে মুখ বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতের নাম সিদ্দিয়া খাতুন(৭০)। তিনি গ্রামের হাজী ফুল মিয়ার স্ত্রী। এই খুনের ঘটনায় গ্রামে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। নিহতের বড় মেয়ের জামাতা গ্রাম্য মাতব্বর হাজী আবু তালেব দাবি করেন, গ্রামের ফরিদ মিয়া, উমর আলী ও লোকমান মিয়া এ খুন করেছে। অপরদিকে ফরিদ মিয়ার লোকদের দাবি, প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে তারা নিজেরা নিরীহ বৃদ্ধাকে খুন করেছেন। এদিকে গ্রামবাসী জানিয়েছেন, নিহত বৃদ্ধার পরিবার অত্যন্ত শান্তিপ্রিয়। তাদের কারো সাথে বিরোধ নেই। তবে এই পরিবারের বড় জামাতা গ্রাম্য মাতব্বর হাজী আবু তালেবের সাথে তারই চাচাত ভাই ফরিদ মিয়ার দীর্ঘ দিন যাবত বিরোধ চলছে। তারা একেঅপরকে ঘায়েল করতে মামলা-মোকদ্দমা সহ নানা কর্মকান্ড চালাচ্ছে। কিছুদিন ধরে আবু তালেব নিজ বাড়িতে না থেকে শ্বশুরবাড়িতে অবস্থান করছেন।

জানা গেছে, বুধবার সন্ধায় নিখোঁজ হন বৃদ্ধা ছিদ্দিয়া খাতুন। তাকে খুঁজতে এলাকায় মাইকিং করা হয়। রাত ৮টার দিকে বাড়ি থেকে সামান্য দূরে মেঘনা নদীর পাড়ে বৃদ্ধার রক্তাক্ত লাশ দেখে লোকজন পুলিশকে খবর দেয়।

এ ব্যাপারে সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ গিয়াস উদ্দিন বলেন, নিহতের মুখ কাপড় দিয়ে বাঁধা ছিল। তার মাথায় আঘাতের চিহ্ন আছে। তিনি বলেন, নিহতের লাশের ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply