বিরামহীন পাঁচ মেয়র প্রার্থীর গনসংযোগ

কুমিল্লা প্রতিনিধি :

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততোই প্রচার প্রচারনা আর গনসংযোগে ব্যস্ত হয়ে উঠছেন প্রার্থীরা। মেয়র পদে ৯জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করলেও পাঁচ মেয়র প্রার্থী প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। এরা হলেন, ছাত্রলীগ নেতা নূরউর রহমান মাহমুদ তানিম, এ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান মিঠু, আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী এ্যাডভোটেক অধ্যক্ষ আফজাল খান, বিএনপি সমর্থিত মনিরুল হক সাক্কু ও জাতীয় পার্টির এয়ার আহমেদ সেলিম। এছাড়াও মেয়র প্রাথী হিসাবে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন সালমান সাইদ, শিরিন আক্তার, মেজর অবঃ মামুনুর রশিদ, ও চঞ্চল কুমার ঘোষ। তবে এই ৪ মেয়র প্রার্থী তেমনভাবে প্রচারনা চালাচ্ছেন না। এ ৪ প্রার্থী পোষ্টার, মাইকিং, ব্যানার তথা শহরের অলিগলির ভোটারদের চোখে তেমন পরছেনা বলেও অনেকে জানান। এদের মধ্যে এক প্রার্থী মেজর অবঃ মামুনুর রশিদ আর্থিক সংকটের কারণে নির্বাচন হতে সরে দাড়ানোর ঘোষনা দেন।

সাধারণ ভোটারদের ধারণা- দুই মেয়র প্রার্থী মধ্যেই প্রতিদ্বন্দিতা হবে। এদের মধ্যে দলীয় সমর্থন লাভ করার পর আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী এ্যাডভোকেট অধ্যক্ষ আফজাল খান কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাদের কে সঙ্গে নিয়ে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যে সাবেক আইন মন্ত্রী এ্যাডভোটেক আবদুল মতিন খসরু এমপি কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ,ক,ম বাহার উদ্দিন(বাহার)। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আসনের সংসদ সদস্য আ,ম ওবায়েদুল মুক্তাদির চৌধুরী, সদর দক্ষিণ ও বরুড়া একাংশের সংসদ সদস্য নাসিমূল আলম চৌধুরী, কুমিল্লা-৩ মুরাদনগর আসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ জোবায়দা খাতুন পারুল এমপি, কেন্দ্রীয় তাতী লীগের সভাপতি এনায়েদুর রহমান, কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের সহ-সভাপতি কুমিল্লা জেলা পরিষদের নব নিযুক্ত প্রশাসক আলহাজ্ব ওমর ফারুক, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকার,মুরাদনগর উপজেলা আমরা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমিটির সভাপতি সাংবাদিক শরিফুল আলম চৌধুরী যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগ, মহিলা যুবলীগ ও শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ । প্রতিদিনই আফজাল খানের পাশাপাশি দল ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা নির্বাচনী প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। গতকাল বুধবার বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি আবদুল মতিন মাষ্টার সাধারণ সম্পাদক রায় রমেশ চন্দ্র ও বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার অন্যতম স্বাক্ষী যোদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা কর্পোরাল অবসর প্রাপ্ত আবদুল মতিন চৌধুরী প্রচারনা চালান। গতকাল আফজাল খান শহরের বাতাবাড়িয়া, জাংগালিয়া, শ্রীবল্লবপুর, উত্তর ও দক্ষিণ রামপুর, উলুরচর ও নোয়াগ্রাম সহ অন্যান্য এলাকায় আবারও প্রচারনা চালিয়েছেন।

আফজাল খান বলেন, তিনি দলের সমর্থন নিয়ে একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। অপর প্রার্থী বিএনপি থেকে অব্যাহতি প্রাপ্ত ও বিএনপি’র দলীয় চেয়ারপার্সনের নির্দেশ অমান্য করেই সম্মিলিত নাগরিক কমিটির ব্যানারের প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কুর পক্ষে কোন কেন্দ্রীয় নেতা দৃশ্যমান ভাবে প্রচারনায় তেমন জোরালো না থাকলেও বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কণ্ঠলশিল্পী আসিফ ও যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক শিল্প বিষয়ক সম্পাদক শিল্পপতি আলহাজ্ব গোলাম কিবরিয়া সরকার প্রতিনিয়তই প্রচারনায় অংশ নিয়েছেন। গতকাল, বাহুবন্ধ, রাজাপাড়া, ও কাজীপাড়ায় এবং দুপুরে সালমানপুর,গন্দমতি সহ বিভিন্ন এলাকায় গনসংযোগ করেছেন।

পাঁচ প্রার্থীর প্রচারনায় শহরের অলিগলি থেকে শুরু করে সবত্র মুখরিত। আফজাল খান ও মনিরুল হক সাক্কুর পক্ষে মহানগরের বাইরে থেকেও প্রতিদিন বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী এসে প্রচারনায় অংশ নিচ্ছেন।

এদের মধ্যে দুই প্রার্থীর নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গ নিয়ে প্রতিদিনই প্রতিদ্বন্দি মেয়র প্রার্থীরা এক অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনছেন। এর পরেও দ্বিমুখী নির্বাচনী প্রচারনা বেশ জমে উঠছে। এই নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী আফজাল খান ও বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কুর মধ্যে মূল প্রতিদ্বন্দিতা হবে এটাই সাধারণ ভোটারদের ধারণা। কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ সদর আসনের সংসদ সদস্য ও আমরা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমিটির সদস্যরা আফজাল খানের পক্ষে জোরালো প্রচারনায় অংশ নেয়ায় আফজাল খানের জনপ্রিয়তার তথা ভোটের পাল্লা একটু ভারী বলেও মন্তব্য করেছেন অনেকেই।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply