কুসিক নির্বাচন তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী ১৪১।। ঢিলেঢালা ভাবে চলছে অভিযান : ১২দিনের সাড়াশি অভিযানে আটক৭

কুমিল্লা প্রতিনিধি :

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন আর বাকী মাত্র ৯দিন। ৫জানুয়ারী প্রথমবারের মত এ নগরীর ভোটারদের দ্বারা নির্বাচিত হবেন প্রথম নগর পিতা। এদিকে নির্বাচনকে সামনে রেখে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ ও প্রার্থীদের সন্ত্রাসী গ্রেফতারের আহবানে প্রথম দিকে সাধারন ভোটাররা আশ্বস্থ হলেও পুলিশের সাড়াশি অভিযানে আটক মাত্র ৭জন। অথচ পুলিশের ভাষ্যমতে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন এলাকাভূক্ত সদর ও সদর দক্ষিন থানার তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী ১৪১জন। বিভিন্ন সূত্র জানায়,গত ২২নভেম্বর নির্বাচনী তফসীল ঘোষনারপর থেকে প্রার্থীরা নির্বাচনী সমাবেশও নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদন করেন তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে। কুমিল্লা জেলা প্রলিশের বিশেষ শাখার কর্মকর্তা কামাল উদ্দিন বলেন,তালিকাভূক্ত করে তাদের আটকের নির্দেশ দেয়া হয়। কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) শাহজাহান কবীর জানান, কুমিল্লা সাবেক পৌর এলাকার ১১৩জন সন্ত্রাসী তালিকাভূক্ত রয়েছে। পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ওই চিহিৃত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে। গতকাল ২৬ডিসেম্বর সন্ধ্যা পর্যন্ত কোতয়ালী থানা পুলিশ ৬জন সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো মুন্সেফ কোয়াটারের নেহাল,বাগিচাগাও এলাকার পলাশ,দক্ষিন চর্থার সাজ্জাদ হোসেন ও রাসেল,কালিকাপুরের কামাল হোসেন,ধর্মপুরের ফারুক। সদর দক্ষিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন জানান, সিটি কর্পোরেশনের সাবেক সদর দক্ষিন পৌরসভার অংশে তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী রয়েছে ২৮জন। গতকাল পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছে মাত্র ১জন। সে নগরীর আশ্রাফপুর এলাকার আবুল কাশেম। পুলিশ সূত্র জানায়,কুমিল্লা নগরীতে বর্তমানে নির্বাচনকে সামনে রেখে ১৪১জন সন্ত্রাসীকে আটকের চেষ্টা করা হচ্ছে। এদিকে পুলিশের এই ঢিলে ঢালা অভিযান ও অল্প ক’জন সাধারন মানের সন্ত্রাসী গ্রেফতারে মানুষ খুশী না। তারা বলেন,গত ১২দিনে যেখানে মাত্র ৭জন সন্ত্রাসী আটক হয়েছে। আর মাত্র ৯দিনে পুলিশ বাকী কতজনকে গ্রেফতার করবে? নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ প্রার্থী ও সাধারন ভোটারদের সন্ত্রাসী আটকের বিষয়টি বারবার অনুরোধ সত্ত্বেও পুলিশের তথা কথিত সাড়াশি অভিযানে কেন চিহিৃতরা আটক হচ্ছেনা বিষয়টি নিয়ে মোটেও খুশি না তারা। এ ব্যাপারে সংরাইশ এলাকার ব্যবসায়ী বাবুল মিয়া বলেন,লোকমূখে শোনা যাচ্ছে অপরাধীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে অথচ নির্বাচনের বাকী আর মাত্র ৯দিন। যদি তাদের নির্বাচনের পূর্বে গ্রেফতার করা না হয় তবে তারা বিশেষ প্রার্থীর পক্ষে ক্াজ করবে। একই কথা বলেন,নগরীর মনোহরপুর এলাকার স্কুল শিক্ষক মামুনুর রশীদ,মোগলটুলি এলাকার আবু ইউসুফ বাবু,বজ্রপুরের নজরুল ইসলাম দুলাল। পুলিশ নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ সত্ত্বেও এখনও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী গ্রেফতার করতে না পারায় প্রতিটি মেয়র প্রার্থীই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। আ’লীগ সমর্থিত প্রার্থী অধ্যক্ষ আফজল খান বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে করার স্বার্থে যতদ্রুত তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করা যায় ততই মঙ্গল। মনিরুল হক সাক্কু বলেন,নির্বাচন সুষ্টভাবে করার স্বার্থে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার জরুরী। জাতীয় পার্টি’র প্রার্থী এয়ার আহমেদ সেলিম বলেন,এখন পর্যন্ত যে ক’জন সন্ত্রাসী গ্রেফতার বা আটক হয়েছে তারা কেউ তালিকাভূক্ত কিনা সে ব্যাপারে আমার সন্দেহ রয়েছে। যাদের কাছে অস্ত্র আছে তারা কেউ এখন পর্যন্ত গ্রেফতার হয়নি। চিরুনী অভিযান নামে মাত্র। সন্ত্রাসীরা অনেক প্রার্থীর পক্ষে প্রচারনা চালাচ্ছে বলেও তিনি অভিযোগ করে বলেন, তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতার করতে হবে। এছাড়াও তিনি নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষন করে বলেন, কালোটাকার ছড়াছড়ি শুরু হয়েছে এখনই এটা থামাতে হবে। নুর-উর রহমান মাহমুদ তানিম বলেন,যে সকল তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী ধরার কথা তাদের না ধরলে অবশ্যই নির্বাচন সুষ্টভাবে সম্পন্নে বাধাগ্রস্থ হবে। তারা প্রভাব বিস্তার করবে বিশেষ বিশেষ প্রার্থীর হয়ে। আনিসুর রহমান মিঠু বলেন, চিহিৃত সন্ত্রাসীরা অনেকেই কারো না কারো পক্ষে কাজ করছে। চিরুনী অভিযান ঘোষনা দিয়ে সন্ত্রাসী ধরা যাবেনা। নির্বাচন সুষ্ট করার লক্ষ্যেই সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার জরুরী।

গনসংযোগ :

আ’লীগ সমর্থিত প্রার্থী অধ্যক্ষ আফজল খান গতকাল নগরীর লইপুরা,তারাপাইয়া,ঢুলিপাড়া,রাজাপারা। মনিরুল হক সাক্কু পুলিশ লাইন,তালপুকুরপাড় রোড, কুমিল্লা হাইস্কুল সংলগ্ন এলাকা ছাতিপট্রি মফিজাবাদ কলোনী,ছোটরা,দৈয়ারা। এয়ার আহমেদ সেলিম গর্জনখোলা,শাসনগাছা,কালিবাড়ি,কাটাবিল এলাকায় উঠোন বৈঠক করেন। নুর-উর রহমান মাহমুদ তানিম রেসকোর্স,কাপ্তানবাজার,টিক্কাচর,মুরাদপুর,বাদুরতলা,রাজগঞ্জ,দক্ষিন চর্থা,থিরা পুকুর পাড়,রামঘাট এলাকায় এবং আনিসুর রহমান মিঠু,মনোহরপুর হৃষীপর্ট্রি,কাশারীপট্রি,মৌলভীপাড়া নুরপুর,বজ্রপুর,বিষ্ণপুর,পরাতন চ্যেধুরী পাড়া,ইয়াছিন মার্কেট,ঢুলীপাড়া এলাকায় গনসংযোগ করেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply