সরাইলে এক কম্বলে ৩৮ জন

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল :
হাঁড় কাপানো এই শীতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় সরকারিভাবে কম্বল বরাদ্দ এসেছে ৩৫২টি। কিন্তু উপজেলায় হতদরিদ্রের সংখ্যা সাড়ে ১৩ হাজার। সেই মোতাবেক এক কম্বল ৩৮ হতদরিদ্রের জন্য বরাদ্দ।

উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, উপজেলায় হতদরিদ্রের সংখ্যা সাড়ে ১৩ হাজার। কম্বল পাওয়া গেছে ৩৫২টি। হতদরিদ্রদের মাঝে বিতরণের জন্য উপজেলার নয়টি ইউনিয়ন পরিষদের প্রত্যেক চেয়ারম্যানকে ২৮টি করে কম্বল দেয়া হয়। অরুয়াইল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা মো. মিজানুর রহমান বলেন, আমার ইউনিয়নে শুধু মেঘনা নদী তীরবর্তী রাজাপুর, কাকরিয়া, দোবাজাইল ও ধামাউড়া গ্রামের বেশিরভাগ মানুষ হতদরিদ্র। তীব্র শীত ও হিমেল হাওয়ায় ওইসব গ্রামের মানুষ শীতবস্ত্রের অভাবে দূর্বিষহ জীবনযাপন করছে। দারিদ্রসীমার নিচে বসবাসকারী এসব মানুষ নিত্যদিনের খাবার সংগ্রহের পর তাদের কাছে শীতবস্ত্র কেনার টাকা থাকছে না। অথচ কম্বল পেয়েছি মাত্র ২৮টি। এত স্বল্প সংখ্যক কম্বল দিয়ে কিছুই হবে না। সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা আব্দুল জব্বার বলেন, কম্বল পেয়েছি মাত্র ২৮টি। হতদরিদ্র মানুষ রয়েছে হাজারখানেক। এখন এসব কম্বল বিতরণ করাই মুশকিল হবে।

এদিকে গত বুধবার বিকেলে স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা, উপজেলা চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার উপজেলার সরাইল-অরুয়াইল সড়কের দু’পাশে বসবাসকারী শীতার্ত দু:স্থদের মাঝে সরকারী কম্বল বিতরণ করেন।

এ ব্যাপারে সরাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সাফায়াৎ মুহম্মদ শাহে দুল ইসলাম বলেন, সরকারিভাবে ৩৫২ পিছ কম্বল বরাদ্দ পাওয়া যায়। উপজেলায় হতদরিদ্রের সংখ্যা সাড়ে ১৩ হাজার। এ তুলনায় বরাদ্দ খুবই কম। শীতার্ত দুঃস্থ মানুষদের মাঝে কম্বলগুলো বিতরণ করা হয়।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply