কুসিক নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীরা জনগনের মুখোমুখী : অধিকাংশ প্রার্থী বললেন মাদকমুক্ত ও জলাবব্ধতা নিরসনের কথা

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী,কুমিল্লা :

গতকাল কুমিল্লা টাউন হলে সুজন ও সনাকের আয়োজনে মেয়র প্রার্থীদের সাথে জনগণের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে মঞ্চে উপবৃষ্ট মেয়র প্রার্থীরা
কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন .ভোটদিন-জেনেশুনে বুঝেদিন,মেয়র পদপ্রার্থীও জনগনের মধ্যকার অনুষ্ঠান জনগনের মুখোমুখী গতকাল বিকেলে কুমিল্লা বীরচন্দ্র নগর মিলনায়তনে সম্পন্ন হয়। সনাক ও সুজন’র আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে ৭জন মেয়র প্রার্থী অংশ নেয়। আ’লীগ সমর্থিত অধ্যক্ষ আফজল খান ও স্বতন্ত্রপ্রার্থী সালমান সাঈদ অনুপস্থিত ছিলেন। সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন ও সচেতন নাগরিক কমিটি-সনাক কুমিল্লা শাখা আয়োজিত জনগনের মুখোমুখী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আলহাজ্ব শাহ মোঃ আলমগীর খান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন,অধ্যক্ষ সফিকুর রহমান। এছাড়াও সুজনের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শরীফ উদ্দিন এর বক্তব্য শেষে সচেতন নাগরীক কমিটি সনাক’র কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. বদিউল আলমের সঞ্চালনায় উপস্থিত মেয়র পার্থীদের একে একে নগরবাসীর উদ্দেশ্যে কথা বলার সুযোগ দেয়া হয়। পরে উপস্থিত দর্শকের সারি থেকে প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে ৩টি করে প্রশ্ন করার সুযোগ দেয়া হয়। মেয়র প্রার্থীদের অনেকের মুখ থেকে বেড়িয়ে এসেছে জলাবদ্ধতা, রাস্তাঘাট উন্নয়ন,মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত পরিছন্ন নগর হিসেবে কুমিল্লাকে গড়ে তোলার কথা। প্রথমে বক্তব্য শুরু করেন, একমাত্র নারী প্রার্থী শিরিন আক্তার। তিনি সন্ত্রাস দূর্নীতি দারিদ্রতা মোচনের পাশাপাশি নারী মুক্তির লক্ষে কাজ করার অঙ্গীকার করেন। অবসরপ্রাপ্ত সেনা অফিসার মেজর মামুন একটা মাষ্টার প্লান করার মধ্যদিয়ে আগামী সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়ন করার লক্ষে কাজ করার দাবী জানান। তিনি নতুন এই সিটিতে কোথায় কি কি করতে হবে তা এই মূহুর্তে ঠিক করার কথা বলেন। যানজট নিরসনে টাউন সার্ভিস বাস চালুর ঘোষনা দেন যদি মেয়র নির্বাচিত হন। মনিরুল হক সাক্কু বলেন, বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ। কেন না বিভাগীয় শহর ছাড়া সিটি কর্পোরেশন হয় না। কুমিল্লা এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম। জলাবদ্ধতা,মাদক মুক্ত নগর গড়ার কথা বলেন। একটি বাস্তবমূখী সিটি কর্পোরেশন করার ঘোষনা দেন। এয়ার আহমেদ সেলিম বলেন,কুমিল্লা সিটি’র সমস্যা অনেক, দ্রুত এগুলো সমাধান সম্ভব না। সঠিকভাবে কর সংগ্রহের মাধ্যমে মেয়র নির্বাচিত হলে নগরীর উন্নয়নে বাস্তবমূখী পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেন। জলাবদ্ধতা,রাস্তাঘাট উন্নয়ন ও মাদক মুক্ত সমাজ গড়ার কথাও বলেন। প্রতিটি ওয়ার্ডে ১টি করে কমিউনিটি সেন্টার করে সেখানে অস্থায়ী কার্যালয় গড়ে কার্যক্রম পরিচালনার কথাও তিরি বলেন। চঞ্চল কুমার ঘোষ বলেন,তিনি কুমিল্লাকে মেগাসিটি করবেন। কুমিল্লার ময়নামতি কোটবাড়ি এলাকাকে আনুষ্ঠানিক পর্য়টন এলাকা রুপেগড়ে তুলবেন। এছাড়া প্রতিটি ওয়ার্ডে সকল ধর্মের অনুসারীদের জন্য ধর্মীয় উপসানালয় তৈরীর কথাও বলেন। যানজট নিরসনে ফ্লাইভার করার কথাও বলেন। আনিসুর রহমান মিঠু বলেন,জেলায় প্রধান দু’টি রাজনৈতিক দল আ’লীগ ও বিএনপি থেকে দলগুলো অবান্চিত প্রার্থীদের মনোনয়ন দেয়। এসকল প্রার্থীরা কোন উদ্দেশ্যে ছাড়াই জনগনের কাছে যাচ্ছে। তিনি মেয়র নির্বাচিত হলে জলাবদ্ধতা নিরসনে,স্বাস্থ্য সেবা খাতে উন্নয়নে প্রতিটি ওয়ার্ড স্বাস্থ্য সেবা ক্লিনিকও এম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করার কথা বলেন। এছাড়াও তিনি নির্বাচিত হলে নগরভবনে টেন্ডারবাজী এবং নগরে মাদক বিক্রি বন্ধ করতে যা যা প্রয়োজন তাই করবেন। তরুন আ’লীগ নেতা নুর-উর রহমান মাহমুদ তানিম বলেন,কথা আর কাজে মিল থাকতে হবে। সাবেক মেয়রের প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, বিগত দিনে তারা প্রতিশ্র“তি ভঙ্গ করেছে আবারো নতুন করে প্রতিশ্র“তি দিচ্ছেন নগরবাসীকে। তিনি বলেন, এবার মানুষ সঠিক প্রার্থীকে বেছে নেবে। তিনি আরো বলেন,মেয়র নির্বাচিত হলে অতীত কুমিল্লাকে ফিরিয়ে আনবেন। এছাড়াও মাদকম্ক্তু,সন্ত্রাসমুক্ত,জলাবদ্ধতামুক্ত,কুমিল্লা গড়ে তোলার অঙ্গীকার করেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply