মুরাদনগরে হতদরিদ্র পরিবারের উপর অত্যাচার করে ভিটে মাটি দখলের অভিযোগ

ফখরুল ইসলাম সাগর,দেবিদ্বার :

মুরাদনগরের বাঙ্গরা গ্রামের নির্যাতিত হতদরিদ্র কাঠ মিস্ত্রি আঃ আউয়াল ও তার পরিবার
কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা গ্রামের এক হতদরিদ্র অসহায় কাঠ মিস্ত্রি আঃ আউয়াল পরিবারের উপর ব্যাপক নির্যাতন ও অত্যাচার করে পরিবারটিকে নিজ বসত বাড়ী সহ ভিটে মাটি থেকে উচ্ছেধ করার পয়তারা করছে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী পরিবার । এ নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন সহ এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
জানা যায় , বাঙ্গরা গ্রামের হতদরিদ্র আঃ আউয়াল তার কোন ভাই বোন না থাকায় পৈতৃক সুত্রে পাওয়া বাবার দেওয়া ভিটে বাড়িটি নিয়ে কাঠ মিস্ত্রির কাজ করে কোন রকম জীবন যাপন করে আসছিল। কিন্তু ওই সম্পতির উপর কূনজর লাগে তারই পাশের বাড়ীর এমদাদুল হক নসু মিয়ার পুত্রদ্বয় গ্রাম্য মোড়ল ও এলাকার প্রভাবশালী সবুজ ও রফিকের , দির্ঘদিন যাবৎ কৌশল খুজতে থাকে সবুজ ও রফিক গংরা এক পর্যায়ে কাঠ মিস্ত্রি আউয়ালের মায়ের সাথে তার স্ত্রী পারিবারিক জগড়া হয় সেই সুযোগটি কৌশলে কাজে লাগাতে ভুল করেনি ওই মোড়ল চক্রটি , তার মা সুফেদা খাতুনকে ছলে বলে নিয়ে যায় পাশের বাড়ীর সুযোগ সন্ধানী সবুজ ও রফিক গংরা কিছুদিন তাদের ঘরে রেখে ভাল ভাবে আদর আপ্যায়ন করে , তাকে সাড়া জিবন ভরন পোষন করার কথা বলে সরল মনা মহিলার কাছ থেকে একটি দলিলে সই করে নেয় , কিন্তু কিছুদিন অতিবাহিত না হতেই আউয়ালের মা সুফেদা খাতুনকে তারা বাড়ী থেকে বের করে দিয়ে জায়গাটি দখল করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠলে কাঠ মিস্ত্রি আউয়াল তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে কিন্তু দখল চক্রটির টাকার ও ক্ষমতার জোর থাকায় এ মামলায় কিছুই হয়নি তাদের। এনিয়ে এলাকাবাসী ফুসে উঠে লোকজনের তিব্র বাধার মুখে সবুজ ও রফিক তেমন সুবিধা করতে না পেরে ওই এলাকার ক্ষমতাসীন দলের এক প্রভাবশালী ব্যবসায়ীর শেল্টারে আউয়ালের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রকার মিথ্যা ও হয়রানী মুলক মামলা দিয়ে তাকে নাজেহাল করে। এদিকে গত ৬ ডিসেম্বর এরই সুত্র ধরে আউয়ালের স্ত্রী যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আঃ রশিদের কন্যা মিনয়ারা বেগমকে সবুজ রফিক ও তার ভাই আরিফ ধারালো দেশীয় অ¯্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করলে তাকে প্রথমে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরে কুমেক হাসপাতালে প্রেরন করে , এনিয়ে আউয়াল প্রভাবশালীদের চাপের মুখে থানায় মামলা করতে না পেরে কুমিল্লার আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করলে আদালত বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ওসি মুরাদনগরকে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ প্রদান করলে , থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিষয়টি সরজমিনে তদন্ত করার জন্য এসআই দেবাষীশকে ঘটনাস্থলে পাঠায় সে বিষটি তদন্ত করে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ এলাকার কয়েকশত লোকের সম্মুখে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে বলে ঘোষনা দিয়ে আসলেও রহস্য জনক কারনে ওই সন্ত্রাসী ও দখলদারদের বিরুদ্ধে কোন প্রকার ব্যবস্থা গ্রহন করছেনা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষটি নিয়ে এলাকাবাসী এখন সোচ্চার হয়ে তাদের বিচার দাবী করছে।

Check Also

নিউইয়র্কের চিকিৎসক ফেরদৌস খন্দকারে দেওয়া খাদ্য পাচ্ছে দেবিদ্বারের ১ হাজার পরিবার

দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে লকডাউনের কারনে কর্ম হারিয়ে অসহায় হয়ে পড়েছে দেশের হাজার হাজার ...

Leave a Reply