মুরাদনগরে মুক্তিযোদ্ধাদেরকে জাতীয় পতাকা উড়াতে দেয়নি ইউপি চেয়ারম্যান কাদের মোক্তার ও তার স্ত্রী

মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :
সারাদেশের মতো মুরাদনগরে দারোরা ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের উদ্যোগে আয়োজিত বিজয় দিবস পালন করতে যেয়ে ১৯নং দারোরা ইউপির চেয়ারম্যান কাদের মোক্তার ও তার স্ত্রী শাহিনা আক্তার মায়ার বাধার সম্মুখীন হয়েছেন প্রায় অর্ধশতাধিক মুক্তিযোদ্ধা। বিজয় দিবসে ওই চেয়ারম্যান ও তার স্ত্রীর প্রবল বাধা ও হস্তক্ষেপের কারণে মুক্তিযোদ্ধারা পারেনি জাতীয় পতাকা উড়াতে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসনের উদ্দ্যোগে আয়োজিত মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে দারোরা ইউপির মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের কমান্ডার খোরশেদ আলম কান্না জড়িত কন্ঠে এ অভিযোগ করে উপজেলা প্রশাসন সহ উপজেলার ২২টি ইউপির সমস্ত মুক্তিযোদ্ধাদের কে বক্তব্যের মাধ্যমে পেশ করেন। দারোরা ইউনিয়নের আরেক মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আলী মিয়া অভিযোগ করে বলেন, আবদুল কাদের মোক্তার ও তার স্ত্রী মায়া আমাদের ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের উপর অশালীন মন্তব্য ও কুটুক্তি করে আসছে। তিনি আরও বলেন চেয়ারম্যান কাদের মোক্তার আমাদেরকে মুক্তিবাহিনী হিসেবে উল্লেখ না করে চুতিয়া বাহিনীর লোক বলে প্রায় সময় উপহাস বিদ্রুপ করেন। তাছাড়া দারোরা ইউনিয়ন পরিষদে আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের অফিসের কাজের জন্য একটি কক্ষ বরাদ্দ রয়েছে। কিছুদিন পূর্বে চেয়ারম্যান কাদের মোক্তার আমাদের সকল মুক্তিযোদ্ধা কে অশ্রাব্য ভাষায় গালমন্দ করে অফিসে তালা লাগিয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। এ ব্যাপারে আমরা উপজেলা প্রশাসনে লিখিতভাবে অভিযোগ জানানোর পরও কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। মুরাদনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমা বেগম বলেন, বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের কে জাতীয় পতাকা উড়াতে বাধা দেয়া একজন নির্বাচিত চেয়ারম্যানের পক্ষে উচিত হয়নি বলে তিনি দু:খ প্রকাশ করে এ মন্তব্য করেন। এ ব্যাপারে দারোরা ইউপি চেয়ারম্যান কাদের মোক্তার ঘটনার কথা অস্বীকার করে বলেন, আমার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধারা আমি ইউপি চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার পূর্ব হতে বিরোধিতা করে আসছে। মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানের ক্ষতি কিছু হবে এমন কিছু আমি আদৌ করিনাই।

Check Also

করিমপুর মাদরাসায় বোখারী শরীফের খতম ও দোয়া

মো. হাবিবুর রহমান :– কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার করিমপুর জামিয়া দারুল উলূম মুহিউস্ সুন্নাহ মাদরাসায় ১৪৪০ ...

Leave a Reply