শীতে কাবু হয়ে পড়েছে লাখো দরিদ্র মানুষ : নেই শীতবস্ত্র

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল :
হাড় কাঁপানো শীত আর হিমেল হাওয়ায় কাবু হয়ে পড়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল সহ আশপাশ এলাকার দরিদ্র মানুষ। অপরদিকে সরকারি-বেসরকারিভাবে এখনো শীতবস্ত্র বিতরণ শুরু না হওয়ায় দূর্ভোগ বেড়েছে শীতার্ত মানুষের। গত ক’দিন ধরে দিনের বেশির ভাগ সময় সূর্যের মুখ দেখা যাচ্ছে না। ঘন কুয়াশায় ঢাকা থাকে আকাশ। এতে সবচেয়ে বেশি কষ্টে পড়েছে ছিন্নমূল ও নি¤œ আয়ের মানুষ। শীত বস্ত্র না থাকায় বিভিন্ন স্থানে আগুন জ্বালিয়ে অনেক মানুষ শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, শীতজনিত রোগীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, বিশেষ করে নদ-নদী তীরবর্তী ও চরাঞ্চলের কয়েক লাখ দরিদ্র মানুষ শীতের দাপটে কাহিল হয়ে পড়েছে। শীতবস্ত্র না থাকায় এদের অনেকেই একবস্ত্রে পাড় করছে শীত। প্রচ- ঠা-ার কারণে দিনমজুররা কৃষি জমির কাজ করতে হিমশিম খাচ্ছে। সরাইল উপজেলার পানিশ্বর, অরুয়াইল ও পাকশিমুল ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চলের কয়েক হাজার অসহায় মানুষ তীব্র শীতে দুর্বিষহ জীবন যাপন করছেন। অরুয়াইল ইউপি চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান বলেন, মেঘনা নদী তীরবর্তী রাজাপুর, কাকরিয়া, দোবাজাইল ও ধামাউড়া গ্রামের বেশিরভাগ মানুষ হতদরিদ্র। তীব্র শীতে ও হিমেল হাওয়ায় ওইসব এলাকার অসহায় মানুষ শীতবস্ত্রের অভাবে দুর্বিষহ জীবন যাপন করছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পাকশিমুল ইউনিয়নের হাওর এলাকা জয়ধরকান্দি ও পানিশ্বর ইউনিয়নের মেঘনা নদী তীরবর্তী গ্রামগুলোর হাজার হাজার দরিদ্র মানুষ তীব্র শীত ও হিমেল হাওয়ার কারণে মানবেতর জীবন যাপন করছে। এসব এলাকার অনেক মানুষের নেই পর্যাপ্ত শীত বস্ত্র।

এদিকে হাঁড়ভাঙ্গা শীতে দুস্থ-ছিন্নমূল মানুষ ও বৃদ্ধরা বেশি কষ্ট পাচ্ছেন। তীব্র শীতের কারণে শহরের পুরাতন শীতবস্ত্রের দোকানগুলোতে নি¤œ আয়ের মানুষেরা ভিড় জমাচ্ছেন। দারিদ্রসীমার নিচে বসবাসকারী মানুষ নিত্যদিনের খাবার সংগ্রহের পর তাদের কাছে শীতবস্ত্র কেনার টাকা থাকছে না। ফলে পরিবারের সদস্যরা ভিন্ন পন্থায় শীত নিবারণ করছে। এলাকার স্কুল-কলেজগুলোতে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমে গেছে।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply