কুমিল্লা জেলা পরিষদের প্রশাসক হচ্ছেন কৃষকলীগের সহসভাপতি ওমর ফারুক

কুমিল্লা, ৩০ নভেম্বর ২০১১ (কুমিল্লাওয়েব ডট কম) :

আলহাজ্ব মো: ওমর ফারুক
কুমিল্লা জেলা পরিষদের প্রশাসক হচ্ছেন বাংলাদেশ কৃষকলীগের সহসভাপতি আলহাজ্ব মো: ওমর ফারুক। ডিসেম্বরের মধ্যেই এ নিয়োগ হতে পারে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে।

জেলা পরিষদের প্রশাসক পদে রাজনৈতিক নেতাদের নিয়োগের জন্য কুমিল্লাসহ ৫০ জেলায় আওয়ামী লীগ নেতাদের নামের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার আস্থাভাজন দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে ৫০ জনের নামের তালিকা চূড়ান্ত করেছেন। প্রশাসক পদে নিয়োগপ্রাপ্তরা উপমন্ত্রীর পদমর্যাদা পাবেন। এ জন্য সরকার থেকে একটি নির্বাহী আদেশ দেয়া হতে পারে।

সূত্র জানায়, গত এপ্রিল মাস থেকে জেলা পরিষদের প্রশাসক নিয়োগের বিষয়ে সরকার ইতিবাচক মনোভাব দেখানোর পর প্রশাসক পদে নিয়োগের জন্য তালিকা তৈরির কাজ শুরু হয়। গত অক্টোবর এবং নভেম্বরে জেলাগুলো থেকে বিভিন্ন নেতাদের জীবন বৃত্তান্ত সংগ্রহ করা হয়। দলের জন্য যারা নিবেদিত প্রাণ তাদেরকেই এ পদে প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, জেলা পরিষদের প্রশাসক পদের জন্য কুমিল্লা থেকে অন্তত তিনজন জীবন বৃত্তান্ত জমা দিয়েছেন। এদের মধ্য থেকে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের সাবেক ভিপি ও কৃষকলীগ নেতা আলহাজ মো: ওমর ফারুকের নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে।

আলহাজ মো: ওমর ফারুক একজন স্পষ্টবাদী ও ভালো মানুষ হিসেবে কুমিল্লার সর্ব মহলে সমাদৃত । কুমিল্লার সামাজিক সাংস্কৃতিক অঙ্গনে তার ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে।

সূত্র জানায়, শনিবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে জেলা পরিষদ প্রশাসক পদে আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতাদের নিয়োগ দেওয়ার বিষয়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার এ সিদ্ধান্তে দলের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু এবং শেষ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এর আগে জেলা পরিষদ আইন সংশোধন করা হবে। বর্তমানে এ আইন সংশোধনের খসড়া চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। সংশোধনীতে প্রশাসক নিয়োগের বিধান বহাল রাখা হচ্ছে। বিদ্যমান জেলা পরিষদ আইন-২০০০-এর ৮২ ধারায় বলা আছে, এ আইনে যা কিছু থাকুক না কেন জেলা পরিষদ গঠিত না হওয়া পর্যন্ত সরকার জেলা পরিষদে একজন প্রশাসক নিয়োগ করতে পারবে।

সংশোধিত আইনেও এ ধারাটি হুবহু বহাল রাখা হচ্ছে। অর্থাৎ সরকার যে কাউকে জেলা পরিষদ প্রশাসক পদে নিয়োগ দিতে পারবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জেলা পরিষদে প্রশাসক পদে নিয়োগ নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনা করেছেন। গত ২৩ এপ্রিল চাঁপাইনবাবগঞ্জ সফরে যাওয়ার আগে এ নিয়ে আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারক কয়েকজন নেতার সঙ্গেও কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। ওই সময় তিনি জেলা পরিষদে প্রশাসক পদে সম্ভাব্যদের তালিকা তৈরিরও তাগিদ দিয়েছিলেন।

এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার আওয়ামী লীগ সংসদীয় বোর্ডের বৈঠকে ৬৪টি জেলায় সম্ভাব্য প্রশাসক হিসেবে কাদের নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে, এ নিয়ে বিশদ আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে ৪৯টি জেলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হলেও ১৫টি বিষয় অমীমাংসিত রয়েছে। রোববার এ খবর জানাজানির পর আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...