গোপন প্রেমের খেসারত ! পুলিশের হাতে আটকের পর বিয়ে

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) ॥
গোপনে দুইমাস ছুটিয়ে প্রেম করে চলেছিল এক যুগলপ্রেমিক। শুধু এলাকাতেই নয়, সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার ও সিলেটের চাবাগানের মনোরম নির্জন পরিবেশের মাঝেও তাদের প্রেম চলে। তাদের সম্পর্ক শুধু প্রেমের মাঝে সীমাদ্ধ থাকেনি। একসময় লোকচক্ষুর আড়ালে প্রেমিকযুগল একাধিকবার অবিচারে লিপ্ত হয়। আর এই সুযোগ করে দেয় তাদের ক’জন সহযোগী বন্ধু। কিন্তু তাদের পরিবারের লোকজন এ প্রেমের বিষয়ে কিছুই জানতো না। সর্বশেষ গত বুধবার সন্ধ্যায় সরাইল উপজেলার ধরন্তী মিনি কক্সবাজার নামে খ্যাত নির্জন জায়গায় গোপনে প্রেম করতে এসে ওই প্রেমিকযুগল পুলিশের হাতে ধরা পড়ে যায়। রাতভর সরাইল থানায় পুলিশ হেফাজতে আটক থাকার পর গতকাল বৃহস্পতিবার সরাইল সদর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর জব্বারের তত্ত্বাবধানে চার লাখ টাকা মোহরানায় প্রেমিকযুগলের বিয়ে হয়। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় মুখরোচক আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

পুলিশ ও প্রেমিকযুগলের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সরাইল উপজেলার শাহজাদাপুর ইউনিয়নের দেওড়া গ্রামের মো. কদর আলীর পুত্র মো. হাসান (৩০) দুই মাস আগে প্রবাস থেকে ছুটিতে দেশে ফিরে আসে। বাড়িতে ফিরেই হাসান একই গ্রামের ফুল মিয়ার কন্যা শাহনাজ পারভীন বেবীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। ছোটবেলায় দু’জনে একসঙ্গে লেখাপড়া করেছে। তাই সহজেই তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক হয়। পরিবারের লোকজন বিষয়টি না জানলেও তাদের সহযোগী বন্ধুরা সবই জানতো। ঘনিষ্ঠ ও বিশ্বস্ত বন্ধু মো. রাসেল মিয়া প্রেমিকযুগলের প্রেমে সবসময় সুযোগ করে দিয়েছেন। এজন্য হাসান ও বেবী দু’জনই প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। এ বিষয়ে শাহনাজ পারভীন বেবী জানান, আমরা দু’জন দু’জনকে মনেপ্রাণে ভালবাসি। ১২ অক্টোবর দু’জনে কক্সবাজার গিয়ে তিন দিন ছিলাম। হোটেলের এক কক্ষেই আমরা দু’জন রাত্রি যাপন করেছি। সে আমাকে বিয়ে করবে বলেছে। প্রেমিক হাসান জানান, আমি ও বেবী বন্ধু হিসেবে কক্সবাজারসহ অন্যান্য জায়গায় বেড়াতে গিয়েছিলাম। ছিলাম এক কক্ষেই। কিন্তু তাকে বিয়ে করে বউ বানাতে হবে এমনটি ভাবিনি।

এ ব্যাপারে সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. গিয়াস উদ্দিন জানান, ছেলে ও মেয়েটিকে বুধবার সন্ধ্যায় আটকের পর বৃহস্পতিবার তাদের পরিবারের লোকদের জিম্মায় ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply