সরাইলে সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ : নারী নির্যাতন মামলায় আসামি করায় একজন মেধাবী ছাত্রের শিক্ষা জীবন ধব্বংসের পথে

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল (ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া) ॥
সরাইলে মিথ্যা নারী নির্যাতন মামলায় আসামি করায় চুন্টা এ,সি একাডেমীর দশম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্র মো. মোখলেছুর রহমানের শিক্ষা জীবন এখন ধব্বংসের পথে। মোখলেছ বর্তমানে পুলিশের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। বর্তমানে তার স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। টেস্ট পরীক্ষায় সে অংশ নিতে পারছে না। মামলার বাদী চুন্টা গ্রামের সুরুজ মিয়ার কন্যা ফাতেমা বেগম। তাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এই মিথ্যা মামলায় আসামি করা হয়েছে। একটি মহল মেধাবী ছাত্র মোখলেছুর রহমানের শিক্ষা জীবন ধব্বংসের হীন ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে।

গতকাল চুন্টা ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেছেন ছাত্রের বাবা মো. আমির আলী। সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রের বাবা আরো বলেন, আমি গত নয় বছর সুনামের সাথে ইউপি সদস্যের দায়িত্বপালন করেছি। দ্বিতীয়বার আবার নির্বাচিত হয়েছি। আমার ও পরিবারের সুনাম নষ্ট করার জন্য একটি মহল উঠেপড়ে লেগেছে। আমার সম্পূর্ণ নির্দোষ শিশু পুত্রকে নারী নির্যাতন মামলার মিথ্যা আসামি করা হয়েছে। ষোল বছর বয়সের শিশুকে প্রতারণামূলকভাবে মামলায় ১৯ বছর দেখানো হয়েছে। আমি জনপ্রতিনিধি হিসেবে শুধু দায়িত্বের অংশ হিসেবে অন্যায় কাজে বাঁধা দিয়েছিলাম। আর এ কারণে মামলার বাদী ফাতেমা বেগমের পিতা সুরুজ আলী প্রতিশোধ হিসেবে আমার শিশু পুত্রকে আসামি করেছেন। আমার ছেলে আজ বিদ্যালয়ে যেতে পারছে না। দশম শ্রেণীর টেস্ট পরীক্ষা দিতে পারছে না। আমি আমার শিশু পুত্রের শিক্ষা জীবন রক্ষার জন্য প্রশাসন সহ দেশবাসীর কাছে আবেদন করছি। মামলার অপর আসামি ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীরের বড় ভাই মো. শাহ আলম তার ছোট ভাইয়ের পক্ষে লিখিত বক্তব্য সংবাদ সম্মেলনে পড়ে শুনান। তিনি বলেন, আমার সহজ-সরল ছোট ভাইকে শুধু মাত্র হয়রানি করার জন্য এবং সুরুজ আলীর অসৎ কাজে বাধা দেয়ায় মামলায় আসামি করা হয়েছে। আমি মামলা থেকে আমার নাম বাদ দেয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানাচ্ছি। সংবাদ সম্মেলনে চুন্টা এসি একাডেমির প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান নান্নু, ব্যবস্থাপনা পরিষদের সদস্য আব্দুল লতিফ, হাজী আলম সূফী ও সাবেক শিক্ষক হীরু মিয়া বলেন, মেধাবী ছাত্র মোখলেছ ও ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর খুবই ভাল ছেলে। এ ঘটনার সাথে তাদের কোন সম্পৃক্ততা নেই। এটা গভীর ষড়যন্ত্র।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply