সরাইলে রাতের মহাসড়ক ডাকাতদের দখলে -যাত্রীবাহী যানে গণডাকাতি

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল (ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া) ॥
ব্রা‏হ্মণবাড়িয়ার সরাইলে রাতেরবেলা মহাসড়কগুলো প্রায়ই অরক্ষিত থাকার অভিযোগ উঠেছে। সন্ধ্যার পর মহাসড়ক থাকে ডাকাতদের দখলে। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সরাইল বেড়তলা থেকে শাহবাজপুর পর্যন্ত আট কিলোমিটার জায়গার ৪/৫টি স্পটে ডাকাতির ঘটনা ঘটছে হরহামেশা। রাতে মহাসড়কে সরাইল থানার টহলপুলিশ ও বিশ্বরোড খাটিখাতা ফাঁড়ির হাইওয়ে পুলিশের ঢিমেতালে দায়িত্ব পালনের সুযোগে সংঘবদ্ধ সড়ক ডাকাতদল যাত্রীবাহী যানবাহনের গতিরোধ করে যাত্রীদের সর্বস্ব লুটে নিচ্ছে। গত শনিবার রাত পৌনে নয়’টার দিকে সংঘবদ্ধ একটি ডাকাতদল ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে উপজেলার কুট্টাপাড়া মোড়ের স্থানীয় ব্র্যাক অফিস সংলগ্ন স্থানে সড়কে চলাচলকারী যানবাহনের গতিরোধ করে গণডাকাতি চালায়। এসময় মহাসড়কে হাইওয়ে কিংবা সরাইল থানার কোন টহলপুলিশ ছিল না। স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী বেশক’জন নারী-পুরুষ নামপ্রকাশ না করার শর্তে জানান, মুখোশধারী ডাকাতদল প্রথমে মহাসড়কে একটি মালবোঝাই ট্্রাক দিয়ে সড়কে ব্যারিকেট দেয়। গাড়িগুলোর গতিরোধের পর ডাকাতরা বিভিন্ন ধরনের অস্ত্রের মুখে যাত্রীদের জিম্মি করে ফেলে। পরে তারা যাত্রীবাহী বাস, মাইক্রো, সিএনজি অটোরিকশা, প্রাইভেটকারসহ অন্তত ১৫/১৬টি গাড়িতে গণডাকাতি চালায়। প্রায় ৪০মিনিট স্থায়ী ওই ডাকাতির ঘটনার সময়ে মহাসড়কের দুই দিকে কয়েকশত যানবাহন আটকা পড়ে যায়। কুট্টাপাড়ামোড় থেকে একটি যাত্রীবাহী প্রাইভেটকার ফিরে গিয়ে বিশ্বরোড ফাঁড়ির হাইওয়ে পুলিশ নিয়ে আসলে ডাকাতদল ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। কিছুক্ষণ পর সরাইল থানার টহলপুলিশ পিকআপ ভ্যান নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে সড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক করেন। পুলিশ এসময় ঘটনাস্থলে আটকাপড়া গাড়িগুলোকে দ্রুত ছেড়ে যাওয়ার তাগিদ দেয়। তারা গাড়ি থেকে কোন যাত্রীকে নামতে দেয়নি। স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করে বলেন, রাতে প্রায়ই মহাসড়কে টহলপুলিশ থাকে না। কিছু নির্দিষ্ট জায়গায় পুলিশ অবস্থান করেন। সড়কে তাদের মাঝে মধ্যে দেখা যায়। এদিকে শনিবার রাতে মহাসড়কে ডাকাতির ঘটনার কিছুক্ষণ পর ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় সরাইল থানার এসআই বেলালের নেতৃত্বে ৪/৫জন পুলিশ সড়কে অবস্থান করছে। ডাকাতির সম্পর্কে তাদের কাছে জানতে চাইলে একজন কনস্টেবল আচমকা বলে উঠেন এখানেই ঘটনাটি ঘটেছে। কিন্তু পরক্ষণে অন্যরা সবাই সমস্বরে বলে উঠেন এখানে ডাকাতির কোন ঘটনা ঘটেনি। সব গুজব।

এ বিষয়ে বিশ্বরোড হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সার্জেন্ট হায়দার জানান, ডাকাতি নয়, ডাকাতি করার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা পালিয়ে যায়।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, মহাসড়কে গাড়ি আটকের খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে থানাপুলিশের পাশাপাশি হাইওয়ে পুলিশ অবস্থান করছে।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply