চান্দিনা পৌরসভার হিসাব রক্ষক সালাউদ্দিন জেল হাজতে; স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত

মাসুমুর রহমান মাসুদ, স্টাফ রিপোর্টার :
চান্দিনা পৌরসভায় হিসাব রক্ষক মো. সালাউদ্দিন একটি হত্যা মামলায় আদালতের নির্দেশে জেলহাজতে রয়েছেন। তার অনুপস্থিতির কারণে পৌরসভার স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। চান্দিনা পৌরসভায় যোগদানের পর থেকে তার অনিয়মিত অফিস করার কারণে পাওনাদার ও ঠিকাদাররা সময়মত বিল পাননা। এতে ঠিকাদার, কর্মকর্তা, কর্মচারী, কাউন্সিলরদের মাঝেও চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। হিসাব রক্ষক সালাউদ্দিনকে অন্যত্র বদলী করে পৌরসভার কার্যক্রমে স্বাভাবিক গতি ফিরিয়ে আনার দাবী জানিয়েছেন তারা। এদিকে ১৯৯২ সালে প্রকাশিত গেজেট অনুযায়ী পৌরসভার কোন কর্মকর্তা-কর্মচারী জেলহাজতে থাকলে ওই দিন থেকে সে সাময়িক বরখাস্ত বলে গণ্য করা হবে। ওই সময় তিনি খোরাকী ভাতা পাবেন। কিন্তু হিসাব রক্ষক মো. সালাউদ্দিন গত ১৯ অক্টোবর থেকে জেলহাজতে থাকলেও অদ্যাবধি রহস্যজনক কারণে তাকে বরখাস্ত করা হয়নি। ফলে ঠিকাদারসহ সংশ্লিষ্টরা মেয়রের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পৌরসভার একাধিক কর্মচারী অভিযোগ করেন, হিসাব রক্ষক অফিসিয়াল নিয়মানুযায়ী অফিসে আসেন না। অনিয়মিতভাবে কয়েকদিন পর পর অফিসে এসে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করেন। মন্ত্রণালয় থেকে সালাউদ্দিনকে চান্দিনা পৌরসভায় বদলি করার পর তৎকালীন পৌর পরিষদ তাকে হিসাব রক্ষক হিসেবে দায়িত্ব দিতে অপারগতা প্রকাশ করে মন্ত্রাণালয়ে একটি চিঠিও পাঠিয়েছিল। নির্বাচনের পর নতুন পরিষদ তাকে বহাল করে। পৌরসভার একাধিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এ ব্যাপারে পৌর মেয়র শাহ্ মো. আলমগীর খান বলেন, গত ১৭ অক্টোবর হিসাব রক্ষক সালাউদ্দিন মেডিকেল রিপোর্ট জমা দিয়ে সাত দিনের ছুটির আবেদন করেন। ওই দিনই তার ছুটি মঞ্জুর করা হয়। তিনি আরও বলেন, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে কাউন্সিলররা মতামত দিয়েছেন। বিধি অনুযায়ী শিঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ১৭ আগস্ট দেবিদ্বার উপজেলার ভানি গ্রামের রহিমা বেগম বাদি হয়ে হিসাব রক্ষক সালাউদ্দিন সহ ৮ জনের বিরুদ্ধে কুমিল্লার বিজ্ঞ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফৌজদারী দন্ডবিধির ৩০২/২০১/৩৪ ধারায় অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন। বেশ কিছুদিন জামিনে থাকার পর গত ১৯ অক্টোবর কুমিল্লার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট সফিকুর রহমান এর আদালতে হাজিরা দিয়ে পুনরায় জামিন আবেদন করলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। হিসাব রক্ষক সালাউদ্দিন এর বিরুদ্ধে চান্দিনা ও দেবিদ্বার থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। আদালত আর আইনজীবীদের কাছে ঘনঘন যাওয়া-আসা করার কারণে সে সময়মত অফিসে আসতে পারেনা বলে অভিযোগ রয়েছে।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply