সরাইলে যুবলীগ নেতার কান্ড : জাল স্বাক্ষরে উপবৃত্তির টাকা উত্তোলন

আরিফুল ইসলাম সুমন, সরাইল (ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া) ॥
সরাইল উপজেলার শাহজাদাপুর ইউনিয়নের দেওড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক প্রতিনিধি ও ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মো. আরিফুর রহমান বুলবুলের বিরুদ্ধে জাল স্বাক্ষর করে বিদ্যালয়ের বেশক’জন শিক্ষার্থীর উপবৃত্তির টাকা উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ১২ অক্টোবর বিদ্যালয় অফিস কক্ষে। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

ভূক্তভোগী শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, গত ১২ অক্টোবর বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা দিতে আসেন অগ্রণী ব্যাংক চান্দুরা শাখার ব্যবস্থাপক। এসময় বিদ্যালয়ে বেশকিছু শিক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। নিয়মানুযায়ী উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী উপস্থিত থেকে নিজে স্বাক্ষর করে টাকা উত্তোলন করবে। কিন্তু ওই দিন বিদ্যালয়ের অভিভাবক প্রতিনিধি ও স্থানীয় যুবলীগ নেতা মো. আরিফুর রহমান বুলবুল, বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কৃষ্ণ বাবু ও করণিক কামাল মিয়ার যোগসাজশে অনুপস্থিত অনেক শিক্ষার্থীর স্বাক্ষর জাল করে টাকা উত্তোলন করে ফেলেন। পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে গেলে ক’জন শিক্ষার্থীর টাকা তারা বাড়িতে গিয়ে ফেরত দিয়ে আসেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার একাধিক অভিভাবক ও শিক্ষক জানান, পূর্বে বিদ্যালয়ে এইরকম অনেক ঘটনা ঘটেছে। শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ হয়েছে। অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী পপি রানী দাস, পলি সরকার ও ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র সিরাজ মিয়াসহ অনেক শিক্ষার্থী ওই দিন বিদ্যালয়ে ছিল অনুপস্থিত। অথচ তাদের স্বাক্ষর জাল করে টাকা উত্তোলন করে নিয়েছেন যুবলীগ নেতা বুলবুল।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহিত কুমার দেব জানান, বিদ্যালয়ের তিন শতাধিক শিক্ষার্থী উপবৃত্তি পায়। ওই দিন বেশক’জন শিক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। আমি টাকা উত্তোলনের বিষয়টি জেনে সবার টাকা ফেরত দিতে বলেছি। যারা টাকা পায়নি, বাড়িতে গিয়ে তাদের টাকা ফেরত দেয়া হয়েছে। ৬ষ্ট শ্রেণীর ছাত্র সিরাজের টাকা কৃষ্ণ বাবুর কাছে ছিল।

বিদ্যালয়ের অভিভাবক প্রতিনিধি যুবলীগ নেতা আরিফুর রহমান বুলবুল জানান, উপবৃত্তির টাকা বিতরণের শেষ দিকে আমি স্কুলে গিয়েছিলাম। কিছু শিক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। টাকা যেন ফেরত না যায় সেই ব্যবস্থা করার জন্য শিক্ষকদের বলেছিলাম। আমি কোনো জাল স্বাক্ষর করিনি। এ বিষয়ে জানতে অগ্রণী ব্যাংক চান্দুরা শাখায় মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে স্টাফ পরিচয় দিয়ে মো. আতাউর রহমান জানান, ওই বিদ্যালয়ের উপবৃত্তির টাকা বিতরণ করেন ব্যবস্থাপক আবুল কালাম মোল্লা। স্যার অসুস্থ্য, তিনি নাম্বার দিয়ে বলেন উনার মুঠোফোনে কথা বলুন। পরে ওই নাম্বারে ফোন করলে জনৈক ব্যক্তি জানান স্যারের বাসার নাম্বারে যোগাযোগ করুন।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply