দেবিদ্বারে পোকার আক্রমনে রোপা আমন ধানের ব্যপক ক্ষয় ক্ষতিঃ প্রান্তিক কৃষকরা দিশেহারা

দেবিদ্বার(কুমিল্লা)সংবাদদাতা :

দেবিদ্বারে রোপা আমন ক্ষেতে পারচিং সিষ্টেম ব্যবহার করে পোকা দমন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। ছবি-------- সাগর

কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার বিভিন্ন এলাকা গুলোতে ব্যপক পরিমানে এবার রোপা আমন ধানের চাষ হয়েছে।আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ও বৃৃষ্টিপাত কম হওয়ার কারনে জমিগুলোতে পানি না থাকার কারনে মাজরা পোকার আক্রমন, ও পাতা লাল হয়ে আবাদি রোপা আমনের ব্যপক ক্ষয় ক্ষতি হচ্ছেএবং দিশেহারা হয়ে পড়ছেন প্রান্তিক কৃষকরা ।এতে স্থানীয় কৃষি অফিসের সহযোগীতা না পাওয়ার অভিযোগ রয়েছে।
কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এই মৌসুমে দেবিদ্বার উপজেলায় প্রায় ১০হাজার ৫শ’ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধানের চাষ চয়েছে।এতে উফসী জাতের চাষহ য়েছে ৮হাজার ৮শ’হেক্টর জমি,স্থানীয় জাতের ১ হাজার ৭শ’হেক্টর আমন ধান চাষ হয়েছে। কৃষকরা বাজারের বিভিন্ন রকমের কিটনাষক ব্যবহার করে পোকা দমন করতে না পেরে জমিতে পারচিং(ডাল পোতা) সিস্টেম ব্যবহার করে পোকা দমনের চেষ্টা করছে। এ ব্যপারে জাফরগঞ্জ এলাকার বারুর গ্রামের কৃষক হাজী মোঃমাহাবুর রহমান জানান, আমার ৩০শতাংশ জমিতে প্রায় ২০০০টাকা ব্যয় করে রোপা আমন চাষ করেন ,তিনি আশংকা করে বলেন একদিকে জমিতে পানি নেই অন্য দিকে পোকার আক্রমন ও ধানের চারা লাল হয়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এবার হয়তো জমিতে আগের মতন ধান পাবোনা। তবে দেবিদ্বার পৌর এলাকার কয়েকটি আবাদি জমির মাঠ গুরে কৃষকদের সাথে এবিষয়ে জানতে চাইলে একাধিক কৃষক অভিযোগ করে বলেন,মাঠ পর্যায়ের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের কোন সহযোগীতা ও পরামশ্য পাচ্ছেনা। তবে সময় মতো তাদের পরামশ্য ও সহযোগীতা পেলে চাষাবাদে আমাদের অনেক উপকার হতো।
এ ব্যাপারে দেবিদ্বার উপজেলার উপসহকারী কৃষি অফিসার মোঃনুরুল হক জানান- অন্য বছরের তুলনায় এবার জমিতে খোস পচা ও মাজরা পোকার আক্রমন অনেক কম। জমির উরবরতা কমে যাওয়ার কারনে অনেক জমি রোপা আমন লাল হচ্ছে। এনিয়ে তবে আমরা মাঠ পর্যায়ে কৃষকদেরকে পরামশ্য দিচ্ছি।

Check Also

নিউইয়র্কের চিকিৎসক ফেরদৌস খন্দকারে দেওয়া খাদ্য পাচ্ছে দেবিদ্বারের ১ হাজার পরিবার

দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে লকডাউনের কারনে কর্ম হারিয়ে অসহায় হয়ে পড়েছে দেশের হাজার হাজার ...

Leave a Reply