বাঞ্ছারামপুরে নিরীহ ব্যক্তির জমি দখল করে গাছ কেটে ফেলেছে প্রভাবশালীরা

লিটন চৌধুরী.ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃ-

বাঞ্ছারামপুরে আল আমিন নামের এক নিরীহ ব্যক্তির জমি দখল করে গাছ কেটে ফেলেছে প্রভাবশালী চার ব্যক্তি। প্রতিবাদ করায় তারা রোববার বিকালে আল আমিনকে মারধর করেছে এবং তার জমিতে লাগানো মূল্যবান কিছু গাছ কেটে নিয়ে গেছে। এঘটনায় আল আমিন বাদী হয়ে গতকাল সোমবার প্রভাবশালী চার দখলদারকে আসামী করে বাঞ্ছারামপুর থানায় একটি মামলা করেছেন।

জানা গেছে, বাঞ্ছারামপুর উপজেলার দরিকান্দি গ্রামের মধ্যপাড়ায় আল আমিনের ১৪ শতক জমির মধ্যে পাঁচ শতক জমি প্রায় দুই মাস পূর্বে দখল করে একই গ্রামের প্রভাবশালী তিন ভাই সেন্টু, মিন্টু ও শাহজাহান। তারা দখল করা ৫ শতক জমির উপর সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে। এঘটনায় আল আমিন স্থানীয় দরিকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের কাছেও লিখিত অভিযোগ করেন। চেয়ারম্যান গত ১০ আগস্ট দখলকারী তিন ব্যক্তিকে ডেকে বিষয়টি নিষ্পত্তি করে দেন এবং জমির দখল ছেড়ে দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন।

কিন্তু গত দুই মাসেও ওই প্রভাবশালী তিন ভাই আল আমিনের দখল করা জমি ছেড়ে দেননি। উল্টো তারা আল আমিনকে নানাভাবে ভয়ভীতি দেখাতে থাকেন। এ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এই অবস্থায় আল আমিন রোববার দখলকারী তিন ভাই সেন্টু,মিন্টু ও শাহজাহানকে জমির দখল ছেড়ে দিতে বললে তারা আল আমিনকে বেধড়ক মারধর করে। এতে ক্ষুব্ধ তিন ভাই রোববার রাতে আল আমিনের বাড়ি থেকে অর্জুন, মেহগনি, সেগুনসহ বিভিন্ন প্রজাতির অন্তত আটটি মূল্যবান গাছ কেটে নেয়। এরপর থেকে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন আল আমিন ও তার পরিবারের সদস্যরা।

এবিষয়ে মামলার বাদী আল আমিন বলেন,-‘সেন্টু,মিন্টু ও শাহজাহান তারা তিন ভাই হইল ভূমিদস্যু। আমার জায়গার মতো পাশের বিধাব এক মহিলার আরোও ২৬ শতক জায়গা দখল করে রেখেছে। বলতে গেলে ভূমিদস্যুরা উল্টা আমাদেরকে মারধর করে। এবং হত্যা করার হুমকি দেয়।’

এদিকে অভিযুক্ত সেন্টু,মিন্টু ও শাহজাহানের সাথে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে কথা বলতে চাইলে তারা কথা বলতে রাজি হননি।

এদিকে দরিকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো.শফিকুল ইসলাম স্বপন বলেন,-‘সেন্টু,মিন্টু, শাহজাহানরা সম্পূর্ণ প্রভাব খাটিয়ে জায়গাটিতে দেয়াল নির্মাণ করেছে। অবশেষে আল আমিনের গাছ কেটে নেওয়ার বিষয়টি খুবই জঘন্য ঘটনা।এইসব অপরাধীদের বিচার হওয়া উচিত।’

এব্যাপারে বাঞ্ছারামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.আলাউদ্দিন বলেন,-‘দরিকান্দির আল আমিন মামলার তিন আসামী সেন্টু,মিন্টু এবং শাহজাহানের বিরুদ্ধে গত অক্টোবর মাসের ১ তারিখে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন। বর্তমানে চারজনকে আসামী করে আল আমিন বাদী হয়ে যে মামলা করেছেন তা তদন্ত চলছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রমাণিত হলে আসামীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply