সরাইলে মিথ্যা অপহরন মামলা দায়েরের অভিযোগ

সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি ॥
সরাইলে পূর্ব শত্র“তার জের ও সালিশের রায়ে অসন্তোষ্ট হয়ে মিথ্যা অপহরন মামলা দায়েরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার কালীকচ্ছ ইউনিয়নের সূত্রধরপাড়ায়।

এলাকাবাসী জানায়, গত ১৫ সেপ্টেম্বর তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রামের বীনা রানী সূত্রধর ও সুদীপ সূত্রধরের স্ত্রী মঞ্জু রানী সূত্রধরের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরদিন বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধার ছোট ভাই মো. হারুন মৃধা গ্রামের গন্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে সালিশ সভার মাধ্যমে নিস্পত্তি করে দেন। সন্তোষ্ট হতে পারেন নি বীনা রানী সূত্রধরের ছেলে পংকজ সূত্রধর। পূর্ব পরিকল্পনা মাফিক ১৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যার পর সুদীপ সূত্রধরকে বেধড়ক পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠান পংকজ বাহিনী। শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেষ্টা করেন পংকজ ও তার মা বীনা। বিষয়টিকে ধামাচাপা দিতে তড়িঘড়ি করে কুচক্রী মহলের সহযোগিতায় সুচতুর বীনা সূত্রধর উল্টো কিছু নির্দোষ লোককে আসামি করে গত ২১ সেপ্টেম্বর আদালতে অপহরন মামলা দায়ের করেন। কালীকচ্ছ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তকদির হোসেন বলেন, বীনার দায়ের করা মামলাটি সম্পূর্ন মিথ্যা -বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। দরিদ্র একটি লোককে অন্যায়ভাবে মেরে পঙ্গু করেছে। এ দায় এড়ানোর জন্য কিছু শয়তানের পরামর্শে মিথ্যা অপহরন মামলা দায়ের করেছে। উপজেলা চেয়ারম্যানকে অপমান করেছে। বীনার বিচার হওয়া উচিত। সালিশকারক হারুন মৃধা বলেন, বীনার মামলাটি একটি সাজানো নাটক। প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার অপচেষ্টা মাত্র।

এ ব্যাপারে বীনা সূত্রধর বলেন, মামলা প্রসঙ্গে আমি কিছুই বলব না। আইনে যা হয় তাই হবে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সরাইল থানার উপ-পরিদর্শক চন্দন চক্রবর্তী বলেন, মামলার তদন্ত অব্যাহত আছে। অচিরেই মূল রহস্য উদঘাটিত হবে।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply