ব্রা‏হ্মণপাড়ায় বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেল ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী ফেরদাউসী

মিজান সরকার, ব্রা‏হ্মণপাড়া (কুমিল্লা) ॥
কুমিল্লা ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার চান্দলা ইউনিয়নের পদুয়া খামার চারা গ্রামে ২২ সেপ্টেম্বর এক ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীর বিয়ে পন্ড হয় ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজুর রহমান এর হস্তক্ষেপে।

জানা গেছে- পদুয়া খামা চারা গ্রামের আব্দুল করিমের মেয়ে এবং বুড়িচং উপজেলার গাজীপুর গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে জাকির হোসেন (২৩) এর বিবাহের দিনক্ষন ধার্য অনুযায়ী ২২ সেপ্টে¤¦র যথারীতি বর পক্ষ কনের বাড়ীতে চলে আসার পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এই বাল্য বিয়ের ব্যাপারে জানতে পারেন যে কনে ৫ম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রী, তার ক্লাস রোল-০৫, তার স্কুলের জ্ন্মতারিখ ০২/০৫/২০০২ইং । তাৎক্ষনিক তিনি বিয়ে বাড়ীতে আইন প্রয়োগকারী সং¯হার লোকজন পাঠিয়ে বর কনের প্রকৃত জন্ম তারিখ ও বাল্য বিয়ের ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার পর বর কনেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে নিয়ে আসেন। এ সময় উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা বর ও কনে পক্ষের লোকজনের বাল্য বিয়ে না দেয়ার ব্যাপারে স¦ীকারোক্তি ও ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক করার পর মুসলেকা রেখে ছেলে জাকির হোসেনকে তার পিতার জিম্মায় ও মেয়ে ফেরদাউস আক্তারকে তার পিতার জিম্মায় দিয়ে দেয়া হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষক জানান- মেয়েটি যখন আজ স্কুলে আসে নাই তখন তার সহপাঠীদের থেকে জানতে পেরেছি তার আজ বিয়ে। তাৎক্ষনিক খবর পেয়ে বিয়ে বাড়িতে সাংবাদিক নিয়ে উপস্থিত হই, পরে ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রত্যক্ষ হস্তক্ষেপে একটি মেয়ে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল। এসময় উপ¯িহত শিক্ষক মোস্তফা সারোয়ার খান, ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা প্রাথমিক শ্ক্ষিক সমিতির সভাপতি রুহুল আমিন মাষ্টার, থানা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আলী আহাম্মদ ও ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক বিল্লাল হোসেন সরকার সহ উপস্থিত সকলে এই অপ্রাপ্ত বয়সের মেয়েকে দেখে মেয়ের পিতা ও ছেলের পিতাকে নিন্দা প্রকাশ করে বলেন, বলেন- ৫ম শ্রেণীতে পড়ুয়া এত অল্প বয়সের মেয়ের সাথে যারা বিয়ে ঠিক করেছে তাদের আইনানুগ দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি হওয়া উচিৎ।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply