কুমিল্লায় জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাধাঁ :ফাঁকা গুলি ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ: ৩৩ জামায়াত নেতাকর্মী আটক

নিউজ ডেস্ক, কুমিল্লাওয়েব ডট কম :

পুলিশ ও জামায়াত কর্মীদের সংঘর্ষে ২০ পুলিশ সহ অর্ধশত জামায়াত নেতাকর্মী আহত। গুলিবিদ্ধ দুই। ফাঁকা গুলি ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ।
৩৩ জামায়াত নেতাকর্মী আটক।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে শীর্ষ ৫ নেতাসহ সকল নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে কুমিল্লায় জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ কুমিল্লা মহানগর শাখার নেতা কর্মীরা গতকাল বিকাল ৪টায় এক বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলে পুলিশ বাধা দিলে জামায়াত নেতাকর্মীর সাথে সংঘর্ষে ২০ পুলিশ সহ অর্ধশত আহত।

জানা যায়, কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বিক্ষোভ মিছিল উপলক্ষে নেতা কর্মীরা মহানগীরর কান্দিরপাড় সহ বিভিন্ন স্থানে জড়ো হয়। বিকাল ৪টায় কান্দিপাড় মোড় থেকে একত্রে একটি বিশাল মিছিল প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে নগরীর চকবাজার এসে বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দরা বক্তব্য রেখে মিছিল শেষ করে। শেষ পর্যায়ে পুলিশ নেতাকর্মীদের ধাওয়া করে।

এসময় জামায়াতের কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পুলিশ জামায়াত কর্মীদের লক্ষ করে ফাঁকা গুলি, টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। সংঘর্ষে চকবাজারে বাস টার্মিনালের কয়েকটি বাস ও বিভিন্ন অফিস ও দোকানপাটের গ্লাস ভাংচুর করা হয়। পুলিশের সাথে দফায় দফায় জামায়াত কর্মীদের সংঘর্ষে ২০ পুলিশ সহ প্রায় অর্ধশত জামায়াত কর্মী আহত হয়।

চকবাজারে উক্ত সংঘর্ষে আ’লীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা লাঠিসোটা নিয়ে পুলিশের সহযোগিতায় জামায়াত কর্মীদের বিভিন্ন স্থানে খুজে বের করে পিটিয়ে আহত করে পুলিশের সামনে। পুলিশের টিয়ার সেল, বুলেট নিক্ষেপ আর মিছিলকারীদের ইটপাটকেল নিক্ষেপে কুমিল্লার সহকারী পুলিশ সুপার সাজ্জাত হোসেন, কোতয়ালী থানার ওসি মাঈন উদ্দিন মাহমুদসহ ২০পুলিশ আহত আর পুলিশের নিক্ষিপ্ত গুলিতে জামায়াতের দুই নেতা গুলিবিদ্বসহ আহত হয় আরো ৫০ নেতাকর্মী। সংঘর্ষ চলাকালে চকবাজার ্এলাকায় দোনকানপাট, ব্যাংক, হাসপাতাল ও গাড়ী ভাংচোর করে মিছিলকারীরা।

সংর্ঘষ শেষে পুলিশ বিভিন্ন স্থান, হাসপাতাল,বাসা বাড়ী, ছাত্রবাস ও দোকানে আশ্রয় নেয়া ৩৩নেতা কর্মীকে আটক করে। স্থানীয় সূত্রে আটককৃতদের ৩৩ জনের মধ্যে ১৫ জনের নাম জানা যায়। এরা হলেন সাইফুল ইসলাম, ওমর ফারুক, গোলাম সাদিক, মাইন উদ্দিন, এরশাদ মিয়া, এম তানিম, মোখলেছুর রহমান, তাজুল ইসলাম, জাকারিয়া, আবু বকর, আব্দুল কুদ্দুস, শাহাদাত, কামরুল, রবিউল্লাহ, আব্দুল হালিম, মাসুম।

এ রিপোট লেখা পর্যন্ত উক্ত ঘটনায় পুরো নগরে পুলিশ সাড়াশি অভিযান চালাচ্ছে এবং গ্রেফতার অব্যাহত রয়েছে।

এ ঘটনায় কুমিল্লা মহানগর জামায়াতের আমীর কাজী দ্বীন মোহাম্মদ, সেক্রেটারী মুসলেহ উদ্দিন, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আমীর আব্দুস সাত্তার, সেক্রেটারী খন্দকার দেলোয়ার হোসেন, মহানগর শিবির সভাপতি কামরুজ্জামান সোহেল এক বিবৃতিতে তীব্র নিন্দা জানান। বিবৃতিতে বলেন জামায়াতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে কুমিল্লা জামায়াতে উদ্যোগে শান্তিপূর্ন বিক্ষোভ মিছিলের শেষ পর্যায়ে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালায় এবং আমাদের কর্মীদের গ্রেফতার করে। আমরা তার নিন্দা জানাচ্ছি।




Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply