মুরাদনগরের রাজনীতিতে ফের সক্রিয় ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন

ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন আসেছেন, তাই চেনা শহরের অচেনা রূপ
শরিফুল আলম চৌধুরী মুরাদনগর (কুমিল্লা) ও এম ফিরোজ মিয়া :

ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন
বাংলাদেশ আওমীলীগ এর কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ও এফবিসিবিআই’র দু’বারের সাবেক সভাপতি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন ওরফে নাসিম তার নির্বাচনী এলাকা কুমিল্লা-০৩ মুরাদনগরে আসনের কাজিয়াতল রফিকুল ইসলাম ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করাকে ঘিরে শেষ মহুর্তে সাজসজ্জার রূপ পড়েছে গোটা মুরাদনগর জুড়ে। চারদিকেই সেজেছে নতুন রূপে, বির্ণিল ব্যানার, ফেস্টুন, পোষ্টার তোরনে ছেয়ে গেছে মুরাদনগরের গ্রাম গঞ্জে এবং ছড়িয়ে গেছে মহা-সড়কসহ অন্যান্য সড়কগুলোতে। যে পথে তিনি আসবেন কাজিয়াতল খেলার মাঠে ওই সড়কের মাজখানের খানা খন্দে গর্ত ভরাট করে ঝকঝকে সড়ক বদলে দিয়েছে মুরাদনগরের চেহেরা।

চিরচেনা প্রিয় মুরাদনগরের যেন অচেনা রূপ।শনিবার ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনকে বরণ করার জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত মুরাদনগর উপজেলার ২২ ইউনিয়নের মানুষ। বাংলাদেশ আওমীলীগ কেন্দ্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্রী কমিটির সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনের নীরবতা অবশেষে ভেঁেঙ্গছে। তিনি আবারো আওমীলীগ রাজনীতিতে সক্রিয় হচ্ছেন। এতদিন তিনি মুরাদনগরের উত্তাল রাজনীতি থেকে অনেকটা নিজেকে দূরে সরিয়ে রেখেছিলেন। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন হাতে গোনা দু’একবার পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে মুরাদনগর সফর করেন। গত কয়েক দিন থেকে মুরাদনগর উপজেলা কোথায় কোন সমস্যা তা নোট করতে একাধিক বিশ্বস্ত অনুচরকে দায়িত্ব দিয়েছেন তিনি। ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন একাধিকবার মুরাদনগর থেকে আওমীলীগের দলীয় প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য পদে প্রতিদ্বন্ধীতা করে হেরে যান। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি আওমীলীগ থেকে মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্দ্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্ধিতা করার ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও দলের সিদ্ধান্ত আনুযায়ী তাও প্রত্যাহার করেনেন। আওমীলীগ তথা মহাজোটের শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবে ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনের প্রতিদ্বন্ধি হয়ে উঠেন কুমিল্লা (উঃ) জেলা আওমীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকার ফলে গত নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন যুদ্ধে তিনি হেরে যান। অবশ্যই ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন দাবী করেছেন, আওমীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা তাকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার জন্য অনুরোধ করেছিলেন। কিন্তু স্থানীয় আওমীলীগের কোন্দল এড়াতে তিনি দলীয় মনোনয়ন নেন নি। ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন সেই সময় দলীয় মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করতে না পারলেও তাঁর নিজস্ব লোকদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন তিনি। ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনের নিজ নির্বাচনী এলাকা কুমিল্লার মুরাদনগরে বর্তমানে আওমীলীগের কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে তাঁর অনুসারী নেতা কর্মীরা ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়িয়েছেন। তিনি নিজ আওমীলীগের দলীয় রাজনীতি থেকে নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান করলেও জেলা আওমীলীগের সভাপতি আঃ আউয়াল সরকার তাঁর ঘনিষ্ঠ হওয়া কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে প্রভাব রাখছেন ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন। গত সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে কুমিল্লা(উঃ) জেলা আওমীলীগের সাধারণ সম্পদক জাহাঙ্গীর আলম সরকারের সাথে নেতৃত্বের বিরোধে জড়িয়ে পড়েন তিনি। সেই থেকে জাহাঙ্গীর আলমের সাথে আছে ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনের রাজনৈতিক ও আদর্শিকতার চাপা ক্ষোভ রয়েছে।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দল এবং নিজ কর্মী সমর্থক দের সাথে নিয়ে ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন একটু আগভাগেই রাজনৈতিক ময়দান গোছাতে ছক আকছেন বলে মনে করেন তাঁর নেতাকর্মী সহ নিকট জনরা। তারা জানান, বর্তমান প্রেক্ষাপটে তিনি আবার সক্রিয় হয়ে উঠছেন। নির্বাচনকে সামনে রেখে আরারো সক্রিয় হয়ে উঠবেন ভোট রাজনীতির ফ্যাক্টর ইউসুফ আবদুল্লাহ হ্রাুন এমনটি দাবি তাঁর অনুসারিদের।





Check Also

দেবিদ্বারের সাবেক চেয়ারম্যান করোনা আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় মৃত্যু: কঠোর নিরাপত্তায় গ্রামের বাড়িতে লাশ দাফন

দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ভাণী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান (৫৫) করোনায় আক্রান্ত ...

Leave a Reply