৩০ লাখ শহীদ ও দু’লাখ মা-বোনের ইজ্জত লুন্ঠনকারীদের জন্য যুদ্ধাপরাধীদের বিচার-আইনমন্ত্রী

কুমিল্লার আদালতে দৈনিক কার্য তালিকা জনসমক্ষে প্রদর্শনের লক্ষ্যে প্রদর্শন কার্যক্রম এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আইনমন্ত্রী
সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, কুমিল্লা :

কুমিল্লার চীফ জুডিশিয়াল ম্যজিষ্ট্রেট আদালত ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন এবং আদালতের দৈনিক কার্য তালিকা জনসমক্ষে প্রদর্শনের লক্ষ্যে প্রদর্শন কার্যক্রম এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইন, বিচার ও সংসদীয় বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মাননীয়মন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলেন, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে যারা ৩০ লাখ মানুষ হত্যা ও ২ লাখ মা-বোনের ইজ্জত লুন্ঠনের সাথে জড়িত বর্তমান মহাজোট সরকার সেই সব মানবতা বিরোধীদের জন্যই বর্তমানে বিচার কাজ তরান্বিত করছে। তাদের বিচার করা না হলে এই অপরাধের দায় থেকে মুক্তি পাবে না জাতী। গতকাল ১৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে কুমিল্লা জজকোর্ট আদালতের মাঠে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি উপস্থিত আইনজীবি, সুধী ও দলীয় নেতা কর্মীদের উদ্দেশ্য এই কথা বলেন।

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রানালয়ের সচিব সহিদুল করিমের সভাপিত্বিতে প্রধান অতিথি ছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের হুইপ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম আসনের এমপি মুজিবুল হক, কুমিল্লা সদর আসনের এমপি আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার,গনপূর্ত বিভাগের তত্ত্বাবধায় প্রকৌশলী আমিনুল ইসলাম, কুমিল্লা বারের সভাপতি এডভোকেট জহিরুল ইসলাম সেলিম,সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মমিন ফেরদৌস,জেলা প্রশাসক রেজাউল আহসান,পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমান প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইন মন্ত্রী আরো বলেন, বিচারকরা আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বিচারকদের তাড়াতাড়ি বিচার কার্য সম্পাদনের জন্য তাগিদ দেন। মামলা দ্রুত নিস্পত্তির জন্য বিকল্প হিসেবে মামলা মধ্যস্থতা করার কথা বলেন। এতে মামালার জট অনেক কমে যাবে। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে সংগঠিত অপরাধ যুদ্ধাপরাধ না মানবতা বিরোধী অপরাধ সে বিচারের সময় এসেছে। এ সময় তারা হত্যা, লুন্ঠন, ধর্ষন, বাড়ি ঘরে অগ্নিসংযোগসহ ১৪ ডিসেম্বর শত শত বুদ্ধিজীবি হত্যা করে। ১৯৭৩ সালে এসকল অপরাধীদের বিচারের জন্য ট্রাইব্র্যনাল গঠন করা হলেও বঙ্গবন্ধু হত্যার পর ১৯৭৭ সালে এ বিচার প্রক্রিয়া স্থগিত হয়ে যায়। এ সরকারের অঙ্গীকারবন্ধ মানবতা বিরোধীদের বিচারে। এ প্রক্রিয়াই তাদের বিরুদ্ধে বিচার শুরু হয়। অথচ বিরোধীদল বলে, বর্তমান সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এই বিচার প্রক্রিয়া শুরু করে। তিনি আরো বলেন, জাতী ৪০ বছর ধরে যে ক্ষত বহন করে চলছে। তার থেকে জাতীকে মুক্তি দিতে হবে এবং সেটা বর্তমান সরকার আর্ন্তজার্তিক অপরাধ দমন আইনেই করবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply