কুমিল্লাওয়েব এ সংবাদ প্রকাশের পর কুমিল্লায় শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টাকারীর বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী :
কুমিল্লা ওয়েব এ সংবাদ প্রকাশের পর ঢুলিপাড়ায় সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টাকারীর বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে। কুমিল্লা মহানগরের ঢুলিপাড়া এলাকায় ৭ বছরের এক শিশু কন্যাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় মেয়েটির দু:সম্পর্কের চাচা মৃত: আলী আশ্রাফের পুত্র মোঃ শাহজাহান মিয়া (৪২) গত ১ সেপ্টেম্বর শাহজ্াহানের নিজ বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটায়। ঘটনাটি জানাজানি হলে ধর্ষণের চেষ্টাকারী নরপশু শাহজানকে বাঁচাতে এক হয় এলাকার কিছু টাউট বাটপার সমাজপতি। ঘটনার পর থেকে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর রেজাউল করিমের নেতৃত্বেই বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার প্রক্রিয়া চলে। ক্ষতিগ্রস্থ মেয়েটির বাবা মমিনুল ইসলাম রিক্সা চালায় এবং মা মোমেনা আক্তার কুমিল্লা ইপিজেডে ক্ষুদ্র চাকুরী করে। মেয়েটির বাবা-মা দরিদ্র হওয়ায় উল্টো চাপ সৃষ্টি করে বিষয়টি মিটিয়ে ফেলার চেষ্টা করা হয়। মাত্র ১৫ হাজার টাকায় বিষয়টি মিমাংশা করে মামলা না করার শর্তে ওই মেয়ের বাবার নিকট হতে ২শত টাকার ষ্ট্যাম্পে লিখিত নেন। এই ঘটনাটি কুমিল্লা ওয়েব এ সংবাদ প্রকাশের পর মানবাধীকার কর্মীদের নজরে আসে। পরে মানবাধীকারের লোকজন বিষয়টি জানতে সরজমিনে গিয়ে মেয়েটির সাথে কথা বলে ঘটনার সত্যতা জানতে পারে।

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা মহানগরের ঢুলীপাড়া এলাকার টেইলার মাষ্টার শাহজাহান তার ভাতিজী সম্পর্কিত ৭ বছরের মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। গত ১ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় দরিদ্র রিক্সাচালক মমিন মিয়ার ৭ বছর বয়সী শিশু মেয়েটিকে কৌশলে তার ঘরে ডেকে নেয়। পরে ধর্ষনের চেষ্টা করে শিশুর পরিধানের কাপড় ছিড়ে ফেলে। শিশুটি চিৎকার করতে থাকলে এসময় শাহজাহান তাকে ছেড়ে দেয়। ঘরে এসে মেয়েটি এ ঘটনা তার মাকে বললে মুহুর্তের মধ্যে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। রাতে সোনিয়ার পিতা মমিন মিয়া বাড়িতে এসে বিষয়টি শুনে মামলা করার উদ্যোগ নিলে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর রেজাউল করিম, হাবিব, এখলাছ, মনতাজ, গফুর, ইদ্রিছসহ ওই এলাকার শাহজাহানের সহযোগিরা বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালায়। তাদের চাপে এই ঘটনাটি মামলা না করতে পারলেও আপোষ মিমাংসায় রাজি হয়নি মেয়েটির বাবা। ঘটনার পরে এলাকায় গিয়ে মেয়েটির সাথে কথা বলে সাংবাদিক ও মানবাধীকার কর্মীরা। এসময় মানবাধীকার কর্মী নারী দিপীতার সাধারণ সম্পাদক ফাহমিদা জেবিনের কাছে ঘটনার বর্ণনা দেয় মেয়েটি ও স্থানীয়রা। এসময় স্থানীয় সর্দার আয়াত আলী বিষয়টিকে জায়গা-জমি সংক্রান্ত ঘটনা বলে পাশ কাটাতে চাইলে উপস্থিত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের মুখে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে। তবে পৌর কাউন্সিলর রেজাউল করিম জানায়, ঘটনাটি মিমাংসার উদ্যোগ নিলেও মেয়েটির পরিরবার থেকে শাজাহানের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিলে তার কোন আপত্তি নেই। এ বিষয়ে নারী নেত্রী ফাহমিদা জেবিন এ প্রতিনিধিকে জানায়, যারা এমন অমানষীক কাজ করে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া না হলে ভবিষ্যতে এরকম আরো ঘটনা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাবে। সমাজের কিছু দালাল চক্র এমন ঘটনাকে পুঁজি করে অপরাধীদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে অসৎ কাজে সহযোগিদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয়া হবে জানতে চাইলে তিনি জানান, যারা এসব অপরাধীদের সহায়তা করে তারাও একই অপরাধে অপরাধী। এ ক্ষেত্রে মেয়েটির পরিবার থেকে ধর্ষণের চেষ্টাকারী শাহজাহান ও তার সহায়তাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করতে ব্যর্থ হলে অবশ্যই আমরা দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

স্থানীয় সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যে জানাজায়, ঢুলিপাড়া এলাকায় এ চক্রটি একটি সন্ত্রাসী বাহিনীর মাধ্যমে বিভিন্ন কৌশলে ঝামেলা সৃষ্টি করে দীর্ঘ দিন বিচার বাণিজ্য করে আসলেও এসব সন্ত্রাসীদের ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি। এদের বিরুদ্ধে যেই কথা বলে, তার উপর নেমে আসে অমানষিক নির্যাতনসহ মোটা অংকের চাঁদা পরিশোধের ঘটনা। এসব অপরাধীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আইন শৃংখলা বাহিনীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এলাকাবাসী।

Check Also

কুসিক নির্বাচন সুষ্ঠু নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ করার দাবি বিএনপির

সৌরভ মাহমুদ হারুন :– কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ পুলিশ প্রশাসনকে ব্যবহার ...

Leave a Reply