কুমিল্লার বিভিন্ন উপজেলায় নির্মিত হচ্ছে ৭ হাজার টনের খাদ্য গুদাম

কুমিল্লা সংবাদদাতা :
কুমিল্লা জেলায় খাদ্য নিরাপত্তার লক্ষে বিভিন্ন উপজেলায় আরো ৮টি খাদ্য গুদাম নির্মাণ করা হচ্ছে। নির্মিতব্য খাদ্য গুদাম গুলোতে সংরক্ষণ করা যাবে ৭ হাজার টন খাদ্য। কুমিল্লায় প-র্ব থেকে রয়েছে সাড়ে ২৪ হাজার টন ধারণ ক্ষমতার খাদ্য গুদাম।

কমিল্লা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ের সূত্রমতে,সদরের ধর্মপুরে রয়েছে সাড়ে ৫হাজার টন ধারণ ক্ষমতার গুদাম,নতুন নির্মিত হবে ৪ হাজার টন ধারণ ক্ষমতার গুদাম। সদরের চকবাজারে দেড় হাজার,বুড়িচং সদরে ১হাজার ও বুড়িচংয়ের কংশনগরে ১হাজার,বরুড়ায় ২ হাজার, চান্দিনায় সাড়ে ৩ হাজার,হোমনায় ১ হাজার,দাউদকান্দিতে ২হাজার টন ধারণ ক্ষতার গুদাম রয়েছে, দাউদকান্দিতে নতুন করে আরো ৫শ টনের গুদাম নির্মিত হবে। মুরাদনগরে দেড় হাজার টন,দেবিদ্বারে আড়াই হাজার টন, বি-পাড়ায় ৫শ‘ টন ধারণ ক্ষতার গুদাম রয়েছে, বি-পাড়ায় আরো ৫শ‘ টনের গুদাম নির্মাণ করা হবে। চৌদ্দগ্রামে ৫শ‘ টন ধারণ ক্ষতার গুদাম রয়েছে,নতুন নির্মিত হবে আরো ১ হাজার টনের গুদাম। লাকসামের দৌলতগঞ্জে দেড় হাজার টন,নাঙ্গলকোটে ৫ শ‘ টন,এখানে আরো নির্মিত হবে ১হাজার টনের গুদাম।

কমিল্লা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এনায়েতুর রহমান জানান, মোট ধারণ ক্ষমতা সাড়ে ৩১ হাজার টন হলেও সেখানে ৪০ হাজার টন খাদ্য সংরক্ষণ করা যাবে। খাদ্য গুদাম গুলোর কাজ গণপূর্ত বিভাগ করছে বলে তিনি জানান।





Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply