চৌদ্দগ্রামে বিয়ে বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলায় ১২ জন আহত

জামাল উদ্দিন স্বপন:
কুমিলার চৌদ্দগ্রামের গোবিন্দপুরে বিয়ে বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলায় ১২ জন আহত হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে চাঁদার দাবিতে তিন সন্ত্রাসীর নেতৃত্বে শতাধিক লোক দিয়ে এ হামলা চালানো হয়। হামলায় আহতদের মধ্যে দুই জনের অবস্থা গুরুতর। হামলার পর এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী ও হামলায় ক্ষতিগ্রস্তরা জানায়, উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের জালাল উদ্দিনের বিয়ে বাড়িতে পার্র্শ্ববর্তী গ্রাম হাজারীপাড়ার বাবুল, জাহাঙ্গীর ও জাফরের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দেয়ায় ওই বিয়ে বাড়িতে যাওয়ার সময় একটি প্রাইভেটকারের সাথে সন্ত্রাসীদের একটি অটোরিক্সার ধাক্কা লাগিয়ে উশৃঙ্খল আচরণের সৃষ্টি করে। সন্ত্রাসীরা প্রাইভেটকারের চালক সাইফুলকে গাড়ি থেকে নামিয়ে মারপিট করে আহত করে। তারা এলাকায় মিথ্যা অপপ্রচার ছড়িয়ে হাজারীপাড়া থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ শতাধিক লোক আনে। লোকজন অতর্কিতে বিয়ে বাড়ির লোকদের উপর হামলা চালায়। তারা কোপিয়ে ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে বিয়ে বাড়ির শামূল হক সামু (৪০), জুয়েল রানা (৩২), কামাল উদ্দিন (৩২), নাজির আহমেদ(২৭), জামাল উদ্দিন (২৯), মামুন (৩০), মাওলানা শাহজাহান (৪০), সাইফুল (৩২)সহ ১২ জন আহত করে। আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। হামলাকারীরা বিয়ে বাড়ির সেলিম, রবিউল, আলমের বাড়ি ভাংচুর করে। তাদের মধ্যে কোপের আঘাতে গুরুতর আহত শামূল হক সামু ও জুয়েল রানাকে কুমিলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জুয়েল রানার অবস্থা আশংকাজনক দেখে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার পর চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি কামরুল হাসানের নেতৃত্বে দুই পিকআপ পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরবর্তী সংঘর্ষ এড়ানোর জন্য এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। ঘটনার পর থেকে পুরো এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে এবং চৌদ্দগ্রাম থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply